প্রধান মেনু

অনিয়মের প্রতিবাদ করায় আটঘরিয়ায় প্রধান শিক্ষককে নামে থানায় জিডি : সকল শিক্ষকের মধ্যে ক্ষোভ

স্টাফ রিপোর্টার
পাবনার আটঘরিয়ায় তারাপাশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো.আফজাল হোসেনের নামে সন্ত্রাশী আক্ষা দিয়ে মিথ্যা তথ্যদিয়ে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছে উপজেলা সহকারি শিক্ষা অফিসার মো. কামরুজ্জামান খাজা। এঘটনায় উপজেলার সকল শিক্ষকের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। গত ১৩ নভেম্বর আটঘরিয়া থানায় এই লিখিত সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।

জানাযায়, গত বুধবার উপজেলা শিক্ষা অফিসে শিক্ষকদের নিয়ে মাসিক সমন্বয় সভায় উপস্থিত হলে সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. কামরুজ্জামান খাজার নানা অনিয়মের প্রতিবাদ করলে তারাপাশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান মো.আফজাল হোসেনের সাতে বাগবিতন্ডা হয়।

এবিষয়ে তারাপাশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো.আফজাল হোসেন জানান, দেবোত্তর ক্লাস্টারে সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. কামরুজ্জামান খাজা প্রশিক্ষন, ক্লাস্টার প্রশিক্ষন, স্লিপ প্রকল্পের টাকার কাজ করায় অনিয়ম, নিজ দায়িত্বে অতিরিক্তদামে হলুদ পাখির ড্রেস, কাপ ড্রেস, ক্ষুদে ডাক্তার ড্রেস বিতরণ করে অর্থ আত্মসাৎসহ নানা অনিয়মের প্রতিবাদ করায় আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে তিনি আটঘরিয়া থানায় গিয়ে মিথ্যা ডায়েরি করেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উপজেলার দেবোত্তর ক্লাস্টারের একজন শিক্ষক জানান, উপজেলা সহকারি শিক্ষা অফিসার মো. কামরুজ্জামান খানা নানা দুর্নীতি ও অনিয়মের স্বর্গরাজ্য গড়ে তুলেছে। তিনি নিজ ইচ্ছামত প্রধান শিক্ষকদের পরিচালনা করতে চান।

এবিষয়ে উপজেলা সহকারি শিক্ষা অফিসার মো.কামরুজ্জামান খাজা জানান, গত ১১ নভেম্বর প্রশিক্ষনের বিষয়নিয়ে অফিসে এসে আমার উপর চড়াও হলে আমি গত ১৩ নভেম্বর আটঘরিয়া থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করি।

এদিকে উক্ত ঘটনায় উপজেলার সকল শিক্ষক ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এবং তাদের দাবী উপজেলা সহকারি শিক্ষা অফিসার এর বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করলে দেবোত্তর ক্লাস্টারের শিক্ষার পরিবেশ ফিরে আসবে।