প্রধান মেনু

আগামী মঙ্গলবার বিজয় দশমী, চাটমোহরে ৪৯টি মন্ডপে দূর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে

মোঃ নূরুল ইসলাম, চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি ঃ
সারা দেশের ন্যায় পাবনার চাটমোহরে হিন্দু ধর্মমাল্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শ্রী শ্রী দূর্গা পূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়েছে। ৫ দিন ব্যাপি অনুষ্ঠানের মধ্যে শুক্রবার ষষ্ঠী পূজার মধ্যে দিয়ে শুরু হয়েছে পূজার আনুষ্ঠানিকতা । চাটমোহর উপজেলার ১টি পৌরসভা ও ১১টি ইউনিয়নে শারদীয় দূর্গোৎসব পালনের ব্যাপক প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। উপজেলায় এবার ৪৯টি মন্ডপে দূর্গাপূজার আয়োজন করা হয়েছে। পৌরসভায় ১৩টি, হান্ডিয়াল ইউনিয়নে ১৩টি, নিমাইচড়া ইউনিয়নে ৯টি, গুনাইগাছা ইউনিয়নে ৩টি, বিলচলন ইউনিয়নে ৩টি, পাশ্বডাঙ্গা ইউনিয়নে ১টি, হরিপুর ইউনিয়নে ৩টি, মূলগ্রামে ২টি, ফৈলজানায় ১টি, এবং ডিবিগ্রাম ইউনিয়নে ১টি পূজা মন্ডপে অনুষ্ঠিত হবে পূজা। পূজা মন্ডপে প্রতিমা তৈরির কাজ শেষ। মন্দিরে মন্দিরে সাজসজ্জা আর রং তুলির কাজও শেষ করেছেন শিল্পীরা। পূজা উপলক্ষে মার্কেটগুলোতে কেনাকাটারও ধুম পড়েছে। হিন্দু সম্প্রদায়সহ অন্য সম্প্রদায়ের মানুষগুলোও কেনাকাটায় মার্কেটগুলোতে ভির জোমেছে। সুষ্ঠুভাবে পূজা উদযাপনের লক্ষে উপজেলা প্রশাসন ও পৌরসভা পৃথক পৃথক দুটি প্রস্ততি সভা করেছে।

উপজেলা নির্বহী অফিসার সরকার অসীম কুমার জানান, শান্তিপূর্ণভাবে দূর্গোৎসব পালনের লক্ষ্যে উপজেলার প্রতিটি পূজা মন্ডপে নিরাপত্তার ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা এস এম শামীম এহসান জানান, প্রতিটি পূজামন্ডপে ৫০০ কেজি করে চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এছাড়া চাটমোহর পৌরসভার মেয়র মির্জ রেজাউল করিম দুলাল পৌরসভার ১৩টি ও পার্শ্ববর্তী বিলচলন ইউনিয়নের ২টি মন্ডপের প্রত্যেকটিতে ৩ হাজার টাকা করে অনুদান দিয়েছেন।

উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক অশোক চক্রবর্তী ও সাধারণ সম্পাদক প্রবীর দত্ত চৈতন্য জানান, পৌরসভার ১৩টিসহ উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের ৪৯টি মন্ডপে এবার দূর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, উপজেলার সব কয়টি পূজা মন্ডপে শান্তিপূর্ণ ভাবে পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

উপজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা আঃ রহমান রানা জানান, দূর্গাপূজায় এবার ২১২জন আনসার ও ভিডিপি সদস্য দায়িত্ব পালন করবে।