প্রধান মেনু

আটঘরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও পৌরসভার মেয়রের বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ ও অপপ্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

স্টাফরিপোর্টার
পাবনার আটঘরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌরসভার মেয়র মো. শহিদুল ইসলাম রতন ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. তানভীর ইসলামের বিরুদ্ধে অপপ্রচার ও মিথ্যা সংবাদেন প্রকাশের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আটঘরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের আয়োজনে শনিবার দুপুরে পাবনা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌরসভার মেয়র মো. শহিদুল ইসলাম রতনের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. তানভীর ইসলাম।
লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, সম্প্রতি আটঘরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও পৌরসভার মেয়রের বিরুদ্ধে একটি স্বার্থান্বেষী মহল বিভিন্ন গণমাধ্যমে অসত্য, ভিত্তিহীন, উদ্দেশ্যমূলক ও মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করছেন। এছাড়াও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিভিন্ন অপপ্রচার চালাচ্ছে। বাবা-ছেলের হাতে উপজেলা আওয়ামীলীগ জিম্মি, তাদের হাতে নির্যাতনের শিকার দলীয় নেতাকর্মী এমন বিভিন্ন অভিযোগ তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও অনলাইন পোর্টালে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। যা মনগড়া ও ভিত্তিহীন বলে দাবি করেন উপজেলা চেয়ারম্যান। বিষয়টি তদন্তের মাধ্যমে সঠিক তথ্য তুলে ধরতে গণমাধ্যমকর্মীদের প্রতি আহবান জানানো হয়।
সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. তানভীর ইসলামের, পৌর মেয়র মো. শহিদুল ইসলাম রতন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. জাহাঙ্গীর আলম, একদন্ত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ইসমাইল হোসেন সরদার, দেবোত্তর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. মোহাঈম্মীন হোসেন চঞ্চল, উপজেলা আ.লীগের দপ্তর সম্পাদক হেলাল উদ্দিন খান, শ্রমবিষয়ক সম্পাদক মো. মনিরুজ্জামান সুজন, উপজেলাআ.লীগের সদস্য মোজাম্মেল হক মোজাম, চাঁদভা ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি মো. আশরাফুল আলম, লক্ষীপুর ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি রেজাউল করিম, সাধারণ সম্পাদ আলম, মাজপাড়া ইউনিয়ন আ.লীগের সহ-সভাপতি মো. জাবেদ আলী, সাধারণ সম্পাদক মো. জিন্নাত আলী শেখ, উপজেলা দলিল লেখক সমিতির সভাপতি মো. ইলিয়াস আলী মোল্লা, একদন্ত ইউনিয়ন আ.লীগের প্রচার সম্পাদক মাহফুজুর রহমা, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আজিজুল গাফ্ফার, সাধারণ সম্পাদক গোলাম মওলা পান্নু, একদন্ত ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মানিকসহ বিভিন্ন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগে নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
সংবাদ সন্মেলনে উপস্থিত মিথ্যা সংবাদে লিখিত অভিযোগ উল্লেখকারী মাজপাড়া ইউনিয়ন আ.লীগের সহ-সভাপতি ও ইউপি সদস্য মো. জাবেদ আলী জানান, সংবাদে উল্লেখিত কথা সম্পুর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। আমি প্রকৃতপক্ষে কোথাও কোন অভিযোগ করিনাই। একটি কুচক্রী মহল আমান নাম ব্যবহার করে এধরনের মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করায় আমি তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।
আটঘরিয়া উপজেলা দলিল লেখক সমিতির সভাপতি মো. ইলিয়াস আলী মোল্লা বলেন, সংবাদে উপজেলা দলিল দেখক সমিতির নাম ব্যহার করে যে মিথ্যা তথ্য উল্লেখ করা হয়েছে তা সম্পর্ণ বনোয়াট ও ভিত্তিহীন। আমি সমিতির সভাপতি হিসাবে এই কুরুচিপূর্ণ সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।
লিখিত বক্তব্যে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. তানভীর ইসলাম বলেন, সংবাদে আমাকে মাদকসেবী বলা হয়েছে যা সম্পুর্ণ মিথ্যা। তিনি এসময় চ্যালেঞ্জ করে বলেন আমি ড্রোপটেষ্ট করতে প্রস্তুত আছি। যারা এই অপপ্রচার চালাচ্ছেন তাদের প্রতি আববান করেন তারাও যেন ড্রোপটেষ্ট করেন এতেই প্রমান হবে কে প্রকৃত মাদকসেবী।
এসময় উপজেলা আওয়ামলীগের সভাপতি বলেন, আমার বাবা বীরমুক্তিযোদ্ধা মরহুম আজিজুর রহমান ফণি মিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছিলেন। আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে রাজনীতি করি। আমার দ্বারা উপজেলায় আওমালীগের কোন নেতা-কর্মী নির্যাতনের শিকার হয়নি। এসময় দিনি আরও বলেন, গত জেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনিত প্রার্থী রেজাউল রহিম লালের পক্ষে নির্বাচন করায় আমিসহ আমান নেতা-কর্মীদের নামে ১৭টি মিথ্যা মামলা হয়েছে। গত জাতীয় রির্বাচনের পরথেকে আটঘরিয়া উপজেলার সকল স্তরের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে দলের কাজ করছি। বিগত এক বছরে আটঘরিয়া উপজেলায় কোনপ্রকার রাজনৈতিক সহিংসতার ঘটনা ঘটেনাই। কোন স্বার্থান্মেষী মহল ব্যক্তিস্বার্থকে চরিতার্থ করথে সাংবাদিকদের মিথ্যা তথ্যদিয়ে এমন সংবাদ প্রকাশ করিয়েছেন। তিনি মূলধারার সাংবাদিকদের প্রতি আহবান জানান প্রকৃত ঘটনা তদন্তকরে সংবাদ প্রকাশ এবং দেশের এই দূর্যোগের সময় মানুষের পাশে থেকে কাজ করতে সহযোগীতার আহবান জানান।