প্রধান মেনু

ঈশ্বরদীতে পেঁয়াজের দাম এক ধাক্কায় সেঞ্চুতিতে থেকেছে

ঈশ্বরদী (পাবনা) সংবাদদাতাঃ
ঈশ্বরদীতে পেঁয়াজের দাম এক ধাক্কায় সেঞ্চুতিতে অর্থাৎ ১০০ টাকা হয়েছে। ভারতের রপ্তানি বন্ধের খবরে ঈশ্বরদীতে পেঁয়াজের বাজারে অস্থিরতা শুরু হয়েছে। খুচরা বাজারে রাতারাতি ৫০-৬০ টাকা দামের পেঁয়াজ দ্বিগুণ বেড়ে ১০০ টাকায় থেকেছে। আর দাম বাড়ার খবর পেয়ে খুচরা ক্রেতারাও বাজারে হুমড়ি খেয়ে পড়েছে। পেঁয়াজের দাম দ্বিগুণের খবর উপজেলা প্রশাসনে পৌঁছালে বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত নামানো হয়। নির্বাহী ম্যজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মমতাজ মহলের নেতৃত্বে পরিচালিত ভ্রম্যমান আদালত ৫ জন অসাধূ ব্যবসায়ীকে জরিমানা ও মামলা দায়ের করেছেন।
খুচরা দোকানীরা জানান, সোমবার ভারত রপ্তানি বন্ধের ঘোষণা দেয়ার পর হঠাৎ করেই বিপুল ক্রেতা দোকানে ভিড় করেছেন পেঁয়াজ কেনার জন্য। মঙ্গলবার সকালে ঈশ্বরদীর কয়েকটি পাইকারী আড়তদার পেঁয়াজের দাম রাতারাতি বাড়িয়ে ৮০-৯০ টাকা দরে বিক্রি শুরু করেন। খুচনা দোকানীরা এই পেঁয়াজ ৯০-১০০ টাকা কেজিতে বিক্রি করছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইমরুল কায়েস জানান, বাজারে পেঁয়াজের অস্বাভাবিক দাম বাড়ার খবর পেয়ে ভ্রাম্যমান আদালত পাঠিয়েছি। ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মমতাজ মহল জানান. আজকে সতর্কতা মূলকভাবে সামান্য কিছু জরিমানা ও পাঁচ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। ম্যাজিস্ট্রেট বাজারে থাকাকালীন ৬০ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু হয়।
ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বাজার পরিত্যাগের পর আড়তের পাইকার ও বড়ো খুচরা দোকানদার বিক্রি বন্ধ করে পেঁয়াজ সরিয়ে ফেলে। কিছু দোকানদারকে আবারো ৮০-১০০ টাকা কেজিতে বিক্রি করতে দেখা গেছে। আড়তে আর কোন পেঁয়াজ দেখা যায়নি। পেঁয়াজ সরিযে রেখে কৃত্তিম সংকট সৃষ্টি করা হয়েছে।