প্রধান মেনু

কৃষিজমিতে পুকুর খননকারীকে ইউএনও তমালের হুশিয়ারী

মো. আখলাকুজ্জামান, গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি.
দেশব্যাপী এখন মহামারী করোনাভাইরাসের আতঙ্ক বিরাজ করছে। এর মধ্যেই নিয়ম না মেনে ও আইনের তোয়াক্কা না করে দিনরাত ঘরের বাইরে থেকে নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার তিন ফসলী কৃষিজমি গুলোতে চলছে অবৈধভাবে পুকুর খননের মহোৎসব।
জানা গেছে, কৃষিজমিতে মাটি কাটা মেশিন ভেকু নামিয়ে অবৈধভাবে পুকুর খননকারীদের বিরুদ্ধে উপজেলা প্রশাসনের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে জরিমানা আদায় করা সত্ত্বেও কতিপয় প্রভাবশালী ব্যাক্তি ও জমির মালিকরা কৃষিজমি নষ্ট করার মহোৎসবে মেতে উঠেছে।
এদিকে কৃষিজমি বাঁচাতে এবং অবৈধ পুকুর খনন বন্ধ করার জন্য উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ সমসময় মাঠে অভিযান পরিচালনা চালাচ্ছেন। পুকুর খনন বন্ধে কঠোর হুশিয়ারীও উচ্চারণ করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. তমাল হোসেন।
শুক্রবার দুপুরে উপজেলার চাপিলা ইউনিয়নের আগপুরুলিয়া মাঠপাড়া এলাকার কামরুল ফকিরের প্রায় ৪ বিঘা কৃষিজমিতে ভেকু দিয়ে মাটি কেটে অবৈধভাবে পুকুর খনন করার খবর শুনে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করেন ইউএনও। টের পেয়ে একটি ভেকু গাড়ি কৃষিজমির পাশে রেখেই পালিয়ে যায় কন্ট্রাক্টর জাহাঙ্গীর, জামাল ও জমির মালিক কামরুল ফকির। অভিযানে ইউএনও তমাল হোসেন ও সহকারী কমিশনার এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট সাইফ-উল আরেফিনের সঙ্গে ছিল গ্রাম্য পুলিশ ফোর্স।
ওই পুকুর খননস্থলে ইউএনও মো. তমাল হোসেন বলেন, কৃষিজমিতে কোনোভাবেই পুকুর করা যাবেনা। এই মুহুর্ত থেকে এ এলাকার কৃষিজমিতে পুকুর খনন বন্ধ থাকবে। এ আদেশ অমান্য করলে পরবর্তীতে জরিমানাসহ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। প্রশাসনের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানিয়েছেন।#