প্রধান মেনু

গুরুদাসপুরে প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় জবর দখলের প্রতিবাদে মানববন্ধন

গুরুদাসপুর প্রতিনিধি.
নাটোরের গুরুদাসপুরে খুবজীপুর এম হক ডিগ্রী কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবু সাঈদের বিরুদ্ধে শহীদ সাত্তার রেকায়েত প্রতিবন্ধী একীভূত বিদ্যালয়ের শিক্ষক তালিকা পরিবর্তন, জোরপূর্বক ক্ষমতা প্রয়োগ ও বিদ্যালয় জবর দখলের প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন ওই প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠাতা ভুক্তভোগী তিন শহীদ পরিবারের সদস্য, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।
বুধবার সকাল ১০টায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড অফিসের সামনে মেইনরোডে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে নেতৃত্ব দেন শহীদ সাত্তার রেকায়েতের ছোটভাই বিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সাবেক সেনা সদস্য এসএম নজরুল ইসলাম। তিনি বলেন- অভিযুক্ত আবু সাঈদ প্রতিষ্ঠানের কেউনা। ক্ষমতার অপপ্রয়োগের মাধ্যমে বিদ্যালয় জবর দখল করে নিয়মনীতিকে উপেক্ষা করে স্বেচ্ছাচারিভাবে প্রতিষ্ঠানটিকে দেউলিয়া করে ফেলেছে।
তিনি আরও বলেন- নিজনামে একাউন্ট করে প্রতিষ্ঠানের টাকা পয়সা লেনদেন করেন আবু সাঈদ। কাউকে না জানিয়ে ব্যক্তিস্বার্থ চরিতার্থের লক্ষ্যে গোপনে এভাবেই লেনদেন করছেন তিনি। এছাড়াও স্কুলটির প্রতিষ্ঠাকালীন সাইনবোর্ড নামিয়ে চলনবিল প্রতিবন্ধী কল্যাণ সংস্থা নামের একটি সাইনবোর্ড টাঙ্গিয়েছেন।
মানববন্ধনে তিনি ক্ষোভ ও দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, আবু সাঈদ ওই প্রতিষ্ঠান থেকে আমার ও আমার শিক্ষকদের চেয়ারটেবিল সরিয়ে তাদেরকে লাঞ্চিত করেছেন। তিনি এসব অন্যায়ের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে প্রতিষ্ঠানটিকে সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
ওই মানববন্ধনে দুই শহীদ পরিবারের সদস্য বিদ্যালয়ের শিক্ষক চুমকি, আবুল বাশার ও আরিফুল ইসলাম তাদের বক্তব্যে বলেন, প্রতিষ্ঠানটির শুরু থেকেই আমরা শ্রম ও মেধা দিয়ে আসছি। অন্যকারো চাকরি হলে আমরা শহীদ পরিবারের সদস্য হয়েও প্রতারিত হবো কেন?
এ ব্যাপারে যোগাযোগ করলে অভিযুক্ত ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবু সাঈদ বলেন, প্রতিষ্ঠানটি ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র চলছে। নজরুল ইসলামের সাথে মিমাংসায় বসতে রাজি আছেন তিনি