প্রধান মেনু

গুরুদাসপুরে বিক্রয় কেন্দ্রগুলোতে মানা হচ্ছেনা সামাজিক দূরত্ব

গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি.
নাটোরের গুরুদাসপুরে ওএমএস’র চাল ও টিসিবির পণ্য বিক্রয় কেন্দ্রগুলোতে মানা হচ্ছেনা সামাজিক দূরত্ব। বেড়েই চলেছে মানুষের উপচে পড়া ভীড়। এতে করে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকিও বাড়ছে বলে আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা।
উপজেলা ঘুরে দেখা গেছে, গুরুদাসপুর থানার মোড় ও চাঁচকৈড় ধানহাটা মোড়ে টিসিবির সুলভমূল্যের পণ্য বিক্রয় কেন্দ্রের সামনেই দরিদ্র মানুষের লম্বা লাইন। পুলিশের বাধা নিষেধ উপেক্ষায় গা ঘেঁষাঘেঁষি করে সামাজিক দুরত্ব না মেনে হুরোহুরি করে পণ্য কিনছে লোকজন। এ অবস্থা বাণিজ্যনগরী চাঁচকৈড় ও নাজিরপুর বাজারেও লক্ষ করা গেছে। কাঁচা বাজার, মাছ বাজার, মুদি দোকানগুলোতেও বেশ জনসমাগম লক্ষ করা যায়। ছিটকাপড়সহ যেসব পণ্য সামগ্রীর দোকান বন্ধ থাকার কথা সেসব দোকানও প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে দেদার ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে।
সামাজিক দুরত্ব না মেনে টিসিবির পণ্য কিনতে আসা কয়েকজন জানান, তারা আর্থিক কষ্টের মধ্যে রয়েছেন। করোনা ভাইরাসের কারণে মাসখানেক হলো তাদের কাজকর্ম বন্ধ রয়েছে। কর্মহীন হয়ে পড়া মানুষের আয়ের পথও বন্ধ হয়ে গেছে। এমতাবস্থায় বাজারের চেয়ে খানিকটা দাম কম হওয়ায় টিসিবির পণ্য কিনতে লাইনে দাঁড়াতে বাধ্য হয়েছে তারা। অপরদিকে গুরুদাসপুর বাজার, চাঁচকৈড় কাচারিপাড়া ও মধ্যমপাড়ায় ওএমএস’ চাল বিক্রয় কেন্দ্রে ১০টাকা কেজির চাল কিনতে আসা কার্ডধারী নারী-পুরষের উপচে পড়া ভীড় দেখে সচেতন মহল করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. তমাল হোসেন বলেন, সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার জন্য পুলিশকে চিঠি দেওয়া আছে।
গুরুদাসপুর থানার ওসি মোজাহারুল ইসলাম বলেন, করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় পুলিশ ওইসব বিক্রয় কেন্দ্রে দূরত্ব বজায় রেখে পণ্য ক্রয় করার অনুরোধ জানাচ্ছে। বারবার নিষেধ করলেও দরিদ্র শ্রেণির কতিপয় মানুষ তা মানছে না। তারপরও আরো কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।