প্রধান মেনু

চাটমোহরে কাটাখালীতে ২২ ফুট ঘুড়ি সাড়া জাগিয়েছে

বিশ্ব এখন করোনা ভাইরাসে কাঁপছে। কর্মহীন হয়ে পড়েছে মানুষ। অফিস আদালত বন্ধ থাকায় মানুষ বেকারত্ব সময় পার করছেন। এদিকে করোনার ভয়াবহতা বদলে দিয়েছে পুরো পৃথিবীর দৃশ্যপট। এ অবস্থায় নিরাপদে থাকতে স্কুল-কলেজসহ সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। সেই সঙ্গে বন্ধ সব আউটডোর খেলাধুলা। আর এ লম্বা ছুটিতে বাঙালির ঐতিহ্য রঙ্গিন ঘুড়ি নিয়ে মেতেছেন পাবনার চাটমোহর উপজেলার কাটাখালী গ্রামের যুবকেরা। তরুণ প্রজন্মের যুবকরা ২২ ফুট ঘুড়ি বানিয়ে এলাকায় ব্যাপক সারা জাগিয়েছে।
জানা গেছে, কাটাখালী গ্রামের আনিছুর রহমান তিনি নিজ হাতে ২২ ফুট ঘুড়ি বানিয়েছেন। ঘুড়ি বানানোর উৎসাহ জুগিয়েছেন ডিবিগ্রাম ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক আমান উল্লাহ। কারুকার্যে মজিবর রহমান, সেন্টু , রফিজ উদ্দিন, আসাদুজ্জামান ও সিহাব উদ্দিনসহ কয়েক সহপাঠি দিলে ২২ ফুট রকেট ঘুড়ি আনুষ্ঠিক ভাবে বুধবার বিকেলে মুক্ত আকাশে উড়িয়ে দেন। এ সময়ে আশে-পাশের উৎসুক জনতা বিশাল ঘুড়ি দেখার জন্য ভীড় জমে।।
ডিবিগ্রাম ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক আমান উল্লাহ বলেন, ঘুড়ি উড়ানো এ যেন করোনাকালীন ক্লান্তি ও অবসাদ দূর করার এক সুস্থ অনাবিল প্রতিযোগিতা। ঘুড়ি প্রেমি আমান উল্লাহ আরো বলেন, ইতিপূর্বে ১৪ ফুট লম্বা রর্কেট তৈরি করা হয়েছে।
সিনিয়র সাংবাদিক এসএম হাবিবুর রহমান বলছেন, করোনা পরিস্থিতির উন্নতি কবে হবে তা বলা যাচ্ছে না। আবার বাসায় দীর্ঘদিন অবস্থান করার ফলে অনেকের মধ্যেই ক্লান্তি ও অবসাদ ভর করছে। অনেকেই ঘুড়ি উড়িয়ে সেই ক্লান্তি ও অবসাদ ঝেড়ে ফেলতে চাইছেন। মুক্ত আকাশে ঘুড়ি উড়িয়ে বদ্ধ হয়ে থাকা এক মানসিক যন্ত্রণা থেকে কিছুটা হলেও মুক্তি মেলছে। এদিকে চাটমোহর পৌর সদরের বিভিন্ন স্থানে ঘুড়ি বিক্রি করতে দেখা যাচ্ছে।