প্রধান মেনু

চাটমোহর পৌরসভার সড়কের বেহাল দশা,জনদূর্ভোগ চরমে।

বিশেষ স্থানিয় প্রতিনীধি :
প্রথম শ্রেণীর পৌরসভা পাবনার চাটমোহর। পৌরসভার জনগনের নিম্নতম তেমন কোন রাস্তা ঘাটের সুবিধা টুকুও পাচ্ছে না পৌরসদরের বাসিন্দারা । কারণ এই পৌরসভার যোগাযোগ ও ড্রেনের লাইনের ব্যবস্থার খুবই বেহাল দশা রাস্তারডাস্টবিন থাকা সত্তেও যেখানে সেখানে ময়লা আবজর্না ও নিদিষ্ট সময় অনুযায়ী রাস্তায় গাড়িঘোড়া রাখার স্থানের ব্যাবস্থা করা হলেও মানছে না কেও,এজন্য রাস্তার দুই পাশের যানজটের কারণে নাগরিকরা সকল প্রকার সুবিধা থেকেই বঞ্চিত। এই পৌরসভার অভ্যন্তরীণ সড়কের বেহাল দশা। সড়কগুলো দীর্ঘদিন ধরে চলাচলের অনুপযোগি হওয়ায় কারনে চরম জনদূর্ভোগে পরেছে এলাকার মানুষগুলো ।
সরেজমিনে দেখা গেছে, চাটমোহর পৌরসভার প্রধান সড়কটি চলাচলের অনুপযোগি। পাবনা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর সদর দপ্তর থেকে থানা মোড় হয়ে দোলং পর্যন্ত সড়কটিতে পিচঢালাই উঠে খালেখালে জরাজীর্ণ । বিশেষ করে থানার সামনে ও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রধান ফটকের সামনে সামান্য বৃষ্টির পানি জমে গিয়ে রোগীদের মারাত্নক বিপদ নেমে আসে । যানবাহন চলা তো দূরে থাক,পায়ে হেঁটে চলতেই কষ্টভোগ করতে হয় সাধারন মানুষ ও জনগনের চাটমোহর থানা মোড় হতে উপজেলা পরিষদ এলাকা হয়ে নতুন বাজার হাইস্কুল মোড় পর্যন্ত সড়কেরও একই হাল। এই সড়ক ভেঙ্গেচুরে একাকার। সামান্য বৃষ্টিতেই পানি জমে একাকার হয়ে যায়। এ ছাড়া বিভিন্ন মহল্লার সড়কগুলো চলাচলের একেবারেই অযোগ্য হয়ে পড়েছে। দীর্ঘদিন সড়কগুলো সংস্কার না করায় তা চলাচলের অনুপযোগি হয়ে পড়েছে বিশেষ করে স্কুল কলেজ পড়ুয়া ছাত্রছাত্রীরা পড়েছে চড়ম বিপাকে সময়মত যেতে পারছে না স্কুল কলেজে আবার কোনো কোনো সময় যানজটের ও যানচলাচলের সময় স্কুল কলেজের ইউনিফমের্র । বেড়েছে জনদূর্ভোগ বারবার প্রতিবেদন লিখলেও তেমন কোন সারা পাওয়া যায়নি,জনমনের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে জানান,এলাকা বাসি পৌরসভা থেকে প্রতিটি গাড়ি থেকে চাঁদা আদায় করা হচ্ছে। অথচ সড়কগুলো মেরামত করার নাম গন্ধ নেই। এসব রাস্তা দ্রুত সংস্কারের দাবি পৌরবাসীর। কিন্তু কর্তৃপক্ষ কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না।