প্রধান মেনু

চিকিৎসার নামে পাবনায় প্রতারণার করে গেলেন পটুয়াখালির স্বর্পরাজ হিজবুল্লাহ

স্টাফ রিপোার্টারঃ পটুয়াখালির স্বর্পরাজ মো. হিজবুল্লাহর বিরুদ্ধে চিকিৎসার নামে পাবনার নগরবাড়ী জনৈক রোগির সাথে প্রতারণা করে অর্থ আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সুত্র জানায়, গতবৃহস্পতিবার ১২ সেপ্টেম্বর বিকেলে পাবনা জেলার বেড়া উপজেলার আমিনপুর থানার নগরবাড়ী ঘাটে অবস্থিত লুনা ফর্মেসীর মালিক ডাঃ আলী আকবরের দোকানে এক ব্যক্তি আসে। সে নিজেকে স্বর্পরাজ হিজবুল্লাহ পরিচয় দেয়। তার বাড়ী পটুয়াখালী সদর এবং এলাকায় তার নিজস্ব সাপের ফার্ম আছে বলে তিনি জানান। এবং তার মোবাইল নম্বর ০১৭৪০-৫৬৩৫৩৮ সহ একটি ভিজিটিং কার্ড প্রদান করেন। তিঁনি একজন ভাল কবিরাজ বলে নিজেকে জাহির করেন। তাঁর কথায় সরল বিশ্বাসে দীর্ঘদিনের কানে কম শোনা জনৈক রোগি তার কাছ থেকে ছোট এক শিশি তেল নেন। তেল বাবদ সে ৩০০০/- তিন হাজার টাকা নেন। ঘটনার পরের দিন শুক্রবার বিকেলে উক্ত কবিরাজ হিজবুল্লাহ মোবাইল করে রোগির কাছ থেকে আরও ২০০০/- ( দুই হাজার টাকা) দাবী করেন। রোগি টাকা দিতে অপরাগতা প্রকাশ করলে হিজবুল্লাহ তাকে জানায়, টাকা না দিলে তার কানের ক্ষতি হবে, কান পচে যাবে। এ কথা শুনে রোগী তার চাহিদা মোতাবেক ২০০০/- টাকা উক্ত মোবাইলের (বিকাশ) পাঠায়। এদিকে ঘটনাটি জানাজানি হলে আরও বেশ কয়েকজন ব্যক্তি জানায় তাদের সাথেও উক্ত স্বর্পরাজ হিজবুল্লাহ চিকিৎসার নামে প্রতারণা করে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। এ ব্যাপারে স্বর্পরাজ হিজবুল্লাহর সাথে কথা বললে তিনি টাকা নেওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, চিকিৎসার জন্য লাগছে তাই নিয়েছেন। তিঁনি কেন একবারে না নিয়ে চিকিৎসা দেওয়ার পর রোগিকে ভয় দেখিয়ে অতিরিক্ত টাকা আদায় করেছেন জানতে চাইলে তিনি উত্তেজিত হয়ে বলেন, প্রশাসন তাকে কিছুই করতে পারবে না বড় বড় প্রশাসনের লোক তার পকেটে থাকে। এ দিকে ভুক্তভোগীরা এ প্রতারকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেছেন এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু সুদৃস্টি কামনা করেছেন।