প্রধান মেনু

দ্বিতীয় সপ্তাহে সিনেমা হল দখলে ‘বেপরোয়া’

ইদুল আজহা উপলক্ষে মুক্তি পেয়েছে ‘বেপরোয়া’। এর আগে কয়েক দফা মুক্তির ঘোষণা দেওয়ার পরও মুক্তি পিছিয়ে গিয়েছিল ছবিটির। তবে এবারের ঈদে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ৫২ হলে ছবিটি মুক্তি দেয়। মুক্তির পর বিভিন্ন সিনেমা হলে ‘বেপরোয়া’ দেখতে দর্শকরা ভিড় করেন। সিনেমাটি দেখার পর অনেকেই প্রশংসায় ভাসান।

দর্শকের চাহিদার কারণে দ্বিতীয় সপ্তাহে এসে সিনেমাটির হল সংখ্যা বেড়েছে। শুক্রবার থেকে দেশের ৫৬টি সিনেমা হলে দেখানো হবে ‘বেপরোয়া’। এর মধ্যে ঢাকার ভেতর- স্টার সিনেপ্লেক্স, ব্লকবাস্টার সিনেমাস, বলাকা, শ্যামলী, অভিসার, জোনাকী, আনন্দ, বিজিবি ও শাহীন সিনেমা হলে চলবে সিনেমাটি। ঢাকার বাইরে ‘বেপরোয়া’ চলবে যেসব সিনেমা হলে:

মতিমহল (ডেমরা), বর্ষা (জয়দেবপুর), গুলশান (নারায়ণগঞ্জ), ছায়াবানী (ময়মনসিংহ), সিলভার স্ক্রিন (চট্টগ্রাম), সঙ্গীতা (খুলনা), মমো ইন (বগুড়া), চিত্রালী (খুলনা), মমতাজ (সিরাজগঞ্জ), সাগরিকা সিনেমা (চালা), সঙ্গীতা (সাতক্ষীরা), অবসর (ভোলা), পূর্বাশা (শান্তাহার), তিতাস (পটুয়াখালী), রুমা (মুক্তাগাছা), রুমা (শরিয়তপুর), শিকতা (ধুনট), মায়াবী (আখাউড়া), মনিহার (যশোর), আনন্দ (কুলিয়ারচর), অন্তরা (মেলান্দহ), মনিকা (শায়েস্তাগঞ্জ), মৌসুমী (পাকুন্দিয়া), তুলি (নাভারন), রাধানাথ (শ্রীমঙ্গল), রিয়া (জারিয়া), আলমডাঙ্গা (টকিজ), অনামিকা (পিরোজপুর), আনন্দ (তানোর), আয়না (আক্কেলপুর), বাবু টকিজ (কিশোরগঞ্জ), বৈশাখী (নড়িয়া), ছন্দা (কালীগঞ্জ), দিনান্ত (কেশরহাট নওগাঁ), জনতা (জলঢাকা), লাইটহাউজ (পারুলিয়া), মমতাজ মহল (নীলফামারী), নসিব (সাপাহার), রাজু (ঈশ্বরদী), রংধনু (নাজিপুর), রুপালী (পাঁচবিবি), শাহিন (বল্লাবাজার), সখি (হোসেনপুর), সোনালী (ঘোড়াঘাট), মৌসুমী (ইসলামপুর), উল্লাস (বীরগঞ্জ) ও সত্যবতী (শেরপুর)।

কলকাতার রাজা চন্দ পরিচালিত ‘বেপরোয়া’ সিনেমায় জুটি বেঁধে অভিনয় করেছেন রোশান ও ববি। এছাড়াও আছেন অভিনয় করেছেন কাজী হায়াৎ, তারিক আনাম খান, নিমা রহমান, শহীদুল আলম সাচ্চু, নানা শাহ, রেবেকা, কমল পাটেকর, খালেদ হোসেন সুজন প্রমুখ।