প্রধান মেনু

নাটোরের নৌকা পাগল এক নুরুর কাহিনী

নাটোর প্রতিনিধি
নৌকা পাগল এক মানুষের নাম নুরুল ইসলাম নুরু।যেখানেই নির্বাচন নৌকা সাথে নিয়ে পাড়ি জমিয়েছেন সেখানেই।আর্থিক সামর্থ্য না থাকলেও রয়েছে মনের সামর্থ্য।রয়েছে দল ও দলের প্রতিক নৌকার প্রতি অকুন্ঠ ভালবাসা।রয়েছে দলীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি অগাধ আস্থা।নাটোর শহরের চকবৈদ্যনাথ এলাকার ক্ষুদ্র চামড়া ব্যবসায়ী নুরুল ইসলাম নুরু ছিলেন নাটোর পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর। ছিলেন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।এখন আর কোন পদই নাই তার।দলের একজন সাধারণ সদস্য।একজন সাধারণ কর্মি।তার পরও যেখানেই নৌকা সমর্থক কোন মানুষের বিপদের কথা শুনতে পান ছুটে যান একজন নেতার ভুমিকা নিয়ে।কন কনে শীত অথবা ঝড়ো আবহাওয়া;দিন কিংবা রাত নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ফেলে ছুটে যান বিপদগ্রস্থ আওয়ামী লীগ কর্মি-সমর্থক বা সাধারণ মানুষের কাছে।এলাকায় রয়েছে তার ব্যাপক জনপ্রিয়তা।নৌকা ও দলের প্রতি বাড়তি ভালবাসার কারণে কথিত দলীয় অনেক কর্মির গোপন সষড়যন্ত্রের শিকার হতে হয় নুরুকে।তারপরেও থেমে নেই তার চলার গতি।নাটোর জেলার স্থানীয় ও সংসদ নির্বাচন সহ সকল নির্বাচনে সবার আগে নৌকা নিয়ে ছুটে চলেন তিনি। গত জাতীয় নির্বাচনে নিজের একমাত্র সম্বল মোটর সাইকেলে নৌকা আর হ্যান্ডমাইক বেধে নির্বাচনী গণসংযোগে ছুটে গেছেন গোপালগঞ্জ পর্যন্ত। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্বাচনী গণসংযোগ করেছেন মোটরসাইকেল নিয়ে।নির্বাচনী গণ সংযোগ করেছেন ক্রিকেটার মাশরাফি, সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী সহ কুষ্টিয়া,পাবনা,ঝিনাইদহ,নরাইল, রাজবাড়ি, ফরিদপুর, মাদারিপুর সহ বিভিন্ন জেলার আওয়ামী প্রার্থীদের পক্ষে। এ কারণে তার ব্যবসাটিও এখন ধংসের পথে। উচ্চাভিলাশ তাড়া করেনা নুরুল ইসলাম নুরুকে।এ কারণে নাটোর শহরের গুরুত্বপূর্ন অর্থনৈতিক এলাকা পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দীর্ঘ দায়িত্ব পালন ও ৫ বছর ওয়ার্ড কাউন্সিলর থাকার পরও আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হতে পারেননি তিনি। নুরুল ইসলাম নুরু বলেন , তিনি নৌকার তথা বঙ্হবন্ধুর একজন সৈনিক। দলের বিজয় তারঁর বিজয়। তাই যেখানেই নির্ভাচন সেখানেই তিনি ঝাপিয়ে পড়েন নৌখা নিয়ে প্রচারনায়। তিনি বলেন,দলের প্রধান শেখ হাসিনার পরিকল্পনা অনুযায়ী প্রকৃত আওয়ামী লীগ নেতা কর্মিদের মূল্যায়ন ও সঠিক স্থানে বসালে বা দায়িত্ব পালনের সুযোগ দিলে আগামি ৫০ বছরেরও আওয়ামী লীগকে কেউ পেছনে ফেলতে পারবেনা। কিন্তু দলের তৃণমূলে ঢুকতে শুরু করেছে সুবিধাবাদীরা। দলের অনেক নেতাই মনে করেন, নুরুর মত নিবেদিত প্রাণ নেতা-কর্মিদের বেশি বেশি করে কাজে লাগাতে পারলে তৃণমূলে দলের শক্তি আরো বেড়ে যাবে।অথচ গত ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সম্মেলনে তাকে দেয়া হয়নি কোন পদ। এ নিয়ে তার কোন আক্ষেপ নেই। তিনি নৌকার জন্য কাজ করে যাবেন এটাই তার সাফল্য। জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক নাটোর সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শরিফুল ইসলাম রমজান বলেন , নুরুল ইসলাম নুরু নৌকার জন্য নিবেদিত প্রাণ একজন কর্মি। তাকে অবশ্যই দলকে মূল্যায়ন করতে হবে।