প্রধান মেনু

নাটোরের সাথে আমাদের অনেক স্মৃতি জড়িত রয়েছে-প্রধানমন্ত্রী

নাটোর প্রতিনিধি
নাটোরের তিনটি উপজেলা শতভাগ বিদ্যুতায়নের উদ্বোধন করতে গিয়ে নাটোর নিয়ে স্মৃতিচারন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময় নাটোরের বনলতা সেনের শহর উচ্চারণ করে প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ শাহরিয়াজের সাথে ভিডিও কনফারেন্স সংযুক্ত হন।

পরে জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ শাহরিয়াজ উত্তরা গণভবন এবং বঙ্গবন্ধু নিয়ে স্মৃতি চারন করার পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার বক্তৃতায় বলেন, নাটোরের সাথে আমাদের অনেক স্মৃতি জড়িত রয়েছে। আমি এবং আমার ছেলে-মেয়েকে নিয়ে উত্তরা গণভবনে ছিলাম, সেখানকার
উপজেলাগুলো ঘুরে দেখেছি।

এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, নাটোরের সার্বিক উন্নতি হোক। আর চলনবিল নিয়ে শুধু আমাদের নয়, কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের অনেক স্মৃতি বিজড়িত জায়গা। আমরা যমুনা ব্রীজ করার পর নাটোরের সাথে সরাসরি যোগাযোগ তৈরী জন্য নলকা-হাটিকুমরুল মহাসড়ক করে দিয়েছে। যেটি লালপুর পর্যন্ত চলে গেছে। সার্বিক ভাবে উন্নতি হয়েছে। একটা সময় খুবই খারাপ ছিল, এখন সার্বিক ভাবে উন্নতি হয়েছে।এসময় ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রীর সাথে বিদ্যুতের সুফল নিয়ে কথা বলেন, সিংড়া উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান শামিমা হক রোজি এবং আব্দুলপুর সরকারী কলেজের একজন ছাত্র।

পরে প্রধানমন্ত্রী তার বক্তৃতায় ওই শিক্ষাথীর উদ্দেশ্য করে বলেন, আমি চাই, আজকে তোমরা ছাত্র ভাল করে পড়াশুনা করো। মানুষের মত মানুষ হবা। সে সাথে বাবা-মা, শিক্ষক এবং প্রতিষ্ঠানের মুখ উজ্জল করবা। জাতির পিতা যে সোনার বাংলাদেশ গড়তে চেয়েছিলেন, সেই বাংলাদেশে
সোনার ছেলে হিসেবে গড়ে সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলবা। সমগ্র নাটোরবাসীকে আন্তরিক ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জানাই।

ভিডিও কনফারেন্সের শেষ ভাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নৌকা মার্কা ভোট দিয়েছিলেন, এজন্য আমরা উন্নয়ন দিয়েছি। উন্নয়ন দিয়ে যাবো। বাংলাদেশ হবে ক্ষুধা মুক্ত,দারিদ্র মুক্ত। সে সাথে নাটোরের কাঁচা গোল­া এবং গম্ভীরা গানের কথা স্বরণ রয়েছে।