প্রধান মেনু

নাটোরে বড়াইগ্রামে স্ত্রী হিসাবে স্বীকৃতির দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন

নাটোর প্রতিনিধিঃ
it নাটোরের বড়াইগ্রামে স্ত্রী হিসাবে স্বীকৃতির দাবীতে দুদিন যাবৎ প্রেমিকের বাড়িতে অনশন ধর্মঘট করছে প্রতিমা হালদার (২৩) নামে এক তরুণী। প্রতিমা হালদার নাটোর সদর উপজেলার বাসুদেবপুর গ্রামের প্রদীপ হালদারের মেয়ে।
অনশনরত তরুণী জানান, প্রায় পাঁচ বছর ধরে উপজেলার গড়মাটি গ্রামের তানু সরকারের ছেলে প্রতাপ সরকারের সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। সেই সুত্রে চার মাস আগে নাটোর শহরের বঙ্গোজ্জ্বল মন্দিরে পাল পুরোহিতের মাধ্যমে ধর্মীয় মতে তারা দুজন বিয়ে করে। এরপর প্রতাপ সরকার মেয়ের বাবার বাড়িতে যাতায়াত করাসহ তাকে খরচপত্র দিয়ে আসছিল। কিন্তু প্রায় এক মাস আগে থেকে প্রতাপ আর তার সঙ্গে আর দেখা সাক্ষাৎ করছে না। পরে তার সঙ্গে যোগাযোগ করলে সে বিয়ের বিষয়টি অস্বীকার করে।
এতে বাধ্য হয়ে গত রোববার দুপুরে প্রতিমা স্ত্রী হিসাবে স্বীকৃতি দেয়ার দাবীতে প্রতাপের বাড়িতে এসে অবস্থান নেয়। সোমবার বিকালে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ঐ তরুণী সেখানেই অবস্থান করছিল। এদিকে, প্রতিমা আসার পর থেকেই প্রেমিক প্রতাপ সরকার বাড়ি থেকে পলাতক থাকায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।
এ ব্যাপারে প্রেমিক প্রতাপ সরকারের বাবা তানু সরকার বলেন, আমার ছেলে বিয়ের বিষয়টি অস্বীকার করেছে। এখন মেয়েটি আমার বাড়িতে এসে উঠেছে। কিন্তু ছেলে না থাকায় এ ব্যাপারে আমি কিছু বলতে পারছি না।
গোপালপুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম খান বিষয়টির সত্যতা স্বীকার করে জানান, তাদের বিয়ের বিষয়টি আগে যাচাই করা হবে। তারপর এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।