প্রধান মেনু

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহ্ফিল

শফিক আল কামাল (পাবনা) ॥ সেক্টর কমান্ডারস্ ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’৭১ ভাঙ্গুড়া উপজেলা শাখার উদ্যোগে পাবনার ভাঙ্গুড়ায় গণপ্রজান্ত্রী বাংলাদেশ সরকার প্রধানমন্ত্রী ও আওয়মীলীগ সভানেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহ্ফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (২৮’সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৭টায় ভাঙ্গুড়া উপজেলার বকুল তলায় নেতৃবৃন্দ ও নেতা-কর্মিরা স্বতঃফূর্তভাবে জন্মদিন পালন করেন এবং জননেত্রীর দির্ঘায়ু কামনা করেন।

সেক্টর কমান্ডারস্ ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’৭১ ভাঙ্গুড়া উপজেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. আজাদ খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন পাবনা জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা, সেক্টর কমান্ডারস্ ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’৭১ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য ও পাবনা জেলা শাখার সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধ আ. স. ম. আব্দুর রহিম পাকন। তিনি বলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা মেধা, মননশীলতা, দুরদর্শিতা ও বিচক্ষণতা মাধ্যমে দেশকে দুর্বার গতিতে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। দেশ ও জাতির কল্যাণে ও উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে আমরা তাঁর দীর্ঘায়ু কামনা করি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন ভাঙ্গুড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মো. লোকমান হোসেন। তিনি বলেন শেখ হাসিনার জন্মদিন ভাঙ্গুড়ায় আজ শুধুমাত্র ছাত্রলীগ করছে। ভাঙ্গুড়া উপজেলা আওয়মীলীগ, সেচ্ছা-সেবক লীগ, যুবলীগের কোন কার্যক্রম নেই। এটা ভাঙ্গুড়াবাসীর জন্য লজ্জা ও ঘৃণিত কাজ। আমি এ ধরনের কার্যক্রমের ধিক্কার জানাই। এছাড়াও বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন সেক্টর কমান্ডারস্ ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’৭১ ভাঙ্গুড়া উপজেলা শাখার সহ-সভাপতি শামীম হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সরদার আবুল কালাম আজাদ।

আন্যান্যদের মাঝে আরও বক্তব্য দেন সেক্টর কমান্ডারস্ ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’৭১ ভাঙ্গুড়া উপজেলা শাখার দপ্তর সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান তারেক, সদস্য বাসেদুল ইসলাম প্রমুখ। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন ভাঙ্গুড়া উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা হাসিনুর রহমান, গোলাম মোস্তফা, আকবর আলী, নুরুল ইসলাম, নান্ন ডাক্তার, বরুন মেম্বর। ছাত্রলীগ নেতা গোলাম মোস্তফা সুজন, আলতাব সিফাত, সবুজ, শামীম, রিমন, নিউটন, মিলটন, মামুন, সৈকত, শাহীন, সাইদ ও পারভেজসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মি। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সেক্টর কমান্ডারস্ ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’৭১ ভাঙ্গুড়া উপজেলা শাখার যুগ্ম-সম্পাদক মোখলেচুর রহমান।