প্রধান মেনু

পাবনা’য় অপরূত কৃষক আব্দুল খালেককে সন্ধানের দাবিতে স্বজনদের সংবাদ সম্মেলন

পাবনা সদর থানার বলরামপুর গ্রামের শামসুদ্দিন খানের ছেলে অপরূত কৃষক মো. আব্দুল খালেককে সন্ধানের দাবিতে মানববন্ধন করে করেছেন তার পরিবারের স্বজনেরা।

মঙ্গলবার (২১’জুলাই) দুপুরে পাবনা প্রেসক্লাবের ভিআইপি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে অপরূত কৃষকের বড় ভাই খলিলুর রহমান লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমার ছোট ভাই সিরাজগঞ্জ জেলা সদরের মো. বন্দের আলীর মেয়ে উম্মে কুলসুম বীনা এর সাথে ১২বছর যাবৎ পারিবারিকভাবে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে সুখে শান্তিতে ঘর সংসার করে আসছিল। তাদের সংসারে ২টি পুত্র সন্তানও রয়েছে। কিন্তু ভাইয়ের কর্মব্যস্তার সুযোগে জৈনক মো. সাহেদুল ইসলাম আসিফ নামে এক ব্যাক্তির সঙ্গে বেশ কিছুদিন হলো পরক্রিয়া সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিষয়টি জানাজানি হলে ২ পুত্র সন্তানের ভবিষ্যতের কথা বিবেচনা করে আসিফকে সতর্ক করা হয়। কিন্তু তারপরও হঠাৎ একদিন রাতে বীনা ও আসিফ মিলে আমার ছোট ভাই খালেককে হাত পা বেঁধে হত্যার চেষ্টা করে। পরিবারের সদস্যরা টের পেয়ে গেলে আসিফ পালিয়ে যায়। তারপর বীনাকে তার বাবার বাড়ির লোকের কাছে তুলে দেওয়া হয়। বীনার বাবার বাড়ির লোকেরা বীনাকে বুঝিয়ে আবার খালেক এর সাথে ঘর সংসার শুরু করে। কিন্তু পরিবারের সদস্যদের আড়ালে আসিফের সাথে বীনা পরক্রীয়া সম্পর্ক চলতে থাকে। এক পর্যায়ে ছোট ভাইয়ের স্ত্রী বীনা আমাদের বাসার গহনাগাটি, পোশাক আশাক, নগদ টকা ও ছোট ছেলে কে নিয়ে আসিফের সঙ্গে পালিয়ে গিয়ে তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। সেই সাথে আমার ছোট ভাই আসিফকে তালাকনামা পাঠায়। কিছুদিন পর ০৬/০৯/২০১৯ ইং তারিখে আমার ছোট ভাইকে নতুন করে বিবাহ দেই। আমার ছোট ভাই নতুন বিবাহ সুত্রে ২য় স্ত্রীর সাথে সুখে শান্তিতে সংসার করছে। কিন্তু হঠাৎ একদিন ১৭/০৭/২০২০ ইং তারিখে মোবাইল ফোনে কল আসার সাথে সাথে ছোট ভাই তাড়াহুড়ো করে বের হয়ে যায়। তার বর্তমান স্ত্রী সাদিয়া খাতুন স্বামী খালেক কে জিজ্ঞাসা করে তুমি কোথাও যাও। তখন খালেক বলে পূর্বের স্ত্রী বীনা ঢাকা চলে যাচ্ছে, আমি আমার ছোট ছেলেকে আনতে যাচ্ছি। তারপর আর বাসায় ফেরেনি আমার ছোট ভাই আব্দুল খালেক। খালেকের মোবাইল ফোনে কল দিলে বন্ধ পাওয়া যায়। এমনকি তার তালাকপ্রাপ্ত ১ম স্ত্রী বীনা ও আসিফের নাম্বার ও বন্ধ রয়েছে। সব আত্মীয় স্বজনসহ সব অনেক জায়গা খোঁজাখুজির পর আমার ভাইয়ের কোন সন্ধান মেলেনি। তারপর ১৮/০৭/২০২০ ইং তারিখে পাবনা সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয় (যার নং-৮৬০)। আমাদের বিশ্বাস বীনা ও আসিফ ছোট ভাইকে অপহরণ বা হত্যা করেছে। আমরা চরম উৎকন্ঠা ও দুঃচিন্তার মধ্যে দিন অতিবাহিত করছি। সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে আমার ছোটভাইকে উদ্ধার করতে প্রশাসনের নিকট জোড় দাবি জানাই।

সাংবাদ সম্মেলনে নিখোঁজ খালেকের বর্তমান স্ত্রী মোছা. সাদিয়া খাতুন, ভাই মো. খলিলুর রহমান, খালাতো ভাই এস এম আব্দুস সালাম, চাচা শ্বশুর মো. আলমগীর হোসেনসহ ইলেক্ট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।