প্রধান মেনু

পাবনায় করোনা আক্রান্তের ভয়ে চিকিৎসকের পলায়ন

সম্প্রতি দেশব্যাপী করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় পাবনা জেলাতেও করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে।ক্রমবর্ধমান করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসা সেবা দেওয়ার জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতালে কোভিট-১৯ ওয়ার্ড চালু করা হয়।

কোভিট-১৯ ওয়ার্ড চালুর ১ দিনের মাথায় দায়িত্ব ফেলে পালিয়েছেন ১৩৪০৫৯ নং কোডধারী ডা. শরিফুল ইসলাম।ধারণা করা হচ্ছে কোভিড আক্রান্ত হওয়ার ভয়ে তিনি পালিয়েছেন।তার সহকর্মীরা চেষ্টা করেও মোবাইল বন্ধ থাকায় ডা. শরিফুল ইসলাম ’র সাথে যোগাযোগ করতে পারেনি। এমনকি বাসায় লোক পাঠিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় চরম ক্ষোভ দেখা দিয়েছে চিকিৎসা প্রত্যাশী সাধারণ মানুষের মাঝে। ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে পাবনা কভিট ম্যানেজমেন্ট কমিটির সদস্য সচিব ডা. সালেহ মুহাম্মদ আলী জানান, মঙ্গলবার(০৯’জুন) রাতে কোভিট ওয়ার্ডে ডা. শরিফুল ইসলামকে দায়িত্ব দেয়া হলেও তিনি অনুপস্থিত রয়েছে। বুধবার(১০’জুন)কার্যদিবসেও তিনি হাসপাতালে আসেননি। এ বিষয়ে পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষ নিরঞ্জন বসাককে জানানো হয়েছে। তবে এখন পর্যন্তও তিনি দৃশ্যত কোন ব্যবস্থা নেননি। অধ্যক্ষ নিরঞ্জন বসাক বলেন, পাবনা জেনারেল হাসপাতালের পক্ষ থেকে আমাকে জানানোর সাথে সাথে আমি ডা. শরিফুল ইসলামের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করি। তার মোবাইল বন্ধ থাকায় তার বাসায় লোক পাঠানো হয়েছে। অল্প সময়ের মধ্যে সে আমাদের সাথে যোগাযোগ না করলে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। পাবনা সিভিল সার্জনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এমন কোন অভিযোগ আমার কাছে আসেনি, এ বিষয়ে আমার কিছু জানাও নেই। কোন চিকিৎসকের বিরুদ্ধে অনিয়মের সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পেলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিষয়ে পাবনা প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি মীর্জা আজাদ বলেন, এমন দায়িত্বশীল জায়গা থেকে কোন ডাক্তার পালিয়ে যায় বিষয়টি অত্যান্ত ন্যাকার জনক।তিনি এ বিষয়ে গভীর ক্ষোভ প্রকাশ করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের আশাবাদ ব্যাক্ত করেন।