প্রধান মেনু

পাবনায় গুলিসহ আটক ৩: রিমান্ডে ঘাতকদের ব্যবহৃত অস্ত্র উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি!

পাবনা শহরের রাধানগরে গুলিসহ ৩জন আটক হলেও রিমান্ডে ঘাতকদের ব্যবহৃত অস্ত্র উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। অস্ত্র মামলায় রিমান্ড শেষে ৩ আসামীকে জেল হাজতে প্রেরন করেছে তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই শহিদুল ইসলাম।
মামলার বিবরণ সুত্রে জানা যায়, গত ৭ ফেব্রুয়ারী রাত পৌনে ৯টার সময় পাবনা সদর পৌর রাধানগর মহল্লায় পুলিশের টহলদল মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে নাজিউর রহমান নোহান(২৭), আব্দুল আজিজের ছেলে মোঃ ওমর ফারুক ওরফে সৈকত (২৮) ও গোলাম মোস্তফা ওরফে রতনের ছেলে মোঃ জহুরুল ইসলাম (২৬)কে আটক করে। পুলিশ তাদের দেহ তল্লাশি করে একটি তাজা রাইফেলের গুলি, ১টি তাজা কার্তুজের গুলি, ১টি সেভেন পয়েন্ট সিক্স ফাইভ গুলির খোসা ও একটি ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করে। এ ব্যাপারে এসআই মোঃ মোহায়মেনুল ইসলাম বাদী হয়ে সদর থানায় অস্ত্র আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-১৮ তাং-০৮-০২-২০২০ইং। এজাহারে আরো উল্ল্যেখ করা হয়। এসআই মোহায়মিনুল ও সঙ্গিয় ফোর্স এবং মোবাইল এক ও দুই এর টহল দল টহল দানকালে জানতে পারেন, রাধানগর খেদমতগার সমিতির সামনে মারামারি হচ্ছে। এ খবর পেয়ে পুলিশের দুটি টিম ঘটনাস্থলে পৌছালে লোকজন দৌড়ে পালিয়ে যায়। পুলিশ এ সময় ৩জনকে আটক করে এবং তাদের দেহ তল্লাশি করে ধারালো অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করেন। পরে পুলিশ বাদী হয়ে ১৮৭৮সালের ১৯(১) ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন। এজাহারে আরো উল্ল্যেখ করা হয়, আটককৃতরা স্থানীয় ইদ্রিস আলী ইদুর ছেলে আব্দুর সাত্তারকে হত্যার উদ্যেশে গুলি করিয়া গুরত্বর আহত করে। গুরত্বর আহত সাত্তারকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।
পুলিশ গুলি উদ্ধার করলেও অস্ত্র উদ্ধারের জন্য আসামীদের আদালতে হাজির করে রিমান্ড প্রার্থনা করেন। আদালত গত রোববার ১ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ডে অস্ত্র উদ্ধার বা মামলার অগ্রগতির বিষয়ে জানতে চাইলে পাবনা সদর থানার ওসি নাসিম আহম্মেদ জানান, ১দিনের রিমান্ডে অস্ত্র উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। তাই আজ সোমবার রিমান্ডের দিন শেষ হওয়ায় আসামীদের কোর্ট হাজতে প্রেরন করা হয়েছে। এদিকে রিমান্ডে অস্ত্র উদ্ধার না হওয়ায় সাত্তারের পরিবার ও এলাকাবাসী ক্ষোভ জানিয়েছেন এবং আতংকে রয়েছে। স্থানীয়রা জানান, আটককৃতদের কাছ থেকে ৩ প্রকারের গুলি উদ্ধার হলেও সাত্তারকে গুলি করার অস্ত্র উদ্ধার না হওয়ায় তাদের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে। সাত্তারকে গুলি করার অস্ত্র উদ্ধার করে স্থাণীয়দের আতংকের হাত থেকে রক্ষা করতে আইন শংখলা বাহিনীর প্রতি আহবান জানিয়েছেন।