প্রধান মেনু

পাবনায় বসতবাড়ী থেকে জোরপূর্বক ধরে এনে প্রকাশ্যে দিবালোকে একজনকে হত্যা ॥ নাসিম নামের একজন হত্যাকারী গ্রেফতার

পাবনা প্রতিনিধি ঃ পাবনায় বসতবাড়ী থেকে জোরপূর্বক ধরে এনে প্রকাশ্যে দিবালোকে ইয়াছিন আলীকে (৫০) নামক এক ব্যক্তিকে হত্যা
করা হয়েছে। ঘটনার পর পালানোর সময় পাবনা থানা পুলিশ রাজশাহী থেকে নাসিম নামের একজন হত্যাকারীকে গ্রেফতার করেছে।
এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত শুক্রবার পাবনা সদর উপজেলার মালিগাছা ইউনিয়নের ভজেন্দ্রপুর পূর্বপাড়া জামে মসজিদে
জুম্মার নামাজ শেষে মোয়াজ্জেমকে বাদ দেওয়া নিয়ে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি ইমাম মন্ডল এর সাথে একই গ্রামের ইয়াছিন আলী প্রামানিক এর সামান্য কথা কাটাকাটি হয়। এর পর ইয়াছিন তার নিজস্ব বাড়িতে চলে যায়। এর পর ইমান মন্ডল মোবাইল
ফোনের মাধ্যমে তার ছেলেদের ডেকে নিয়ে আসে। ইমান মন্ডলের হুকুমে
তার ছেলে নাসিম ও সোহানের নেতৃত্বে একদল দূবৃত্ত চাইনিজ কুড়াল হাতে নিয়ে ইয়াছিন কে তার নিজস্ব বসত ঘর থেকে টেনে হেসড়ে
বের করে নিয়ে আসে। এ সময় দূর্বৃত্তরা জিআইপাইপ এবং চাইনিজ কুড়াল দিয়ে ইয়াছিনকে মারপিট করে এবং চাইনিজ কুড়াল দিয়ে মাথায় আঘাত করে। ফলে ইয়াছিন গুরুতর ভাবে জখম প্রাপ্ত হয়। এ সময়
ইয়াছিনকে রক্ষা করতে এলে তার বৃদ্ধ মাতা আনোয়ার খাতুন আখি এবং তার স্ত্রী জরিনা খাতুন (৪০) দৃর্বৃত্তদের আক্রমনে আহত হয়। ঘটনার পর আহত ইয়াসিন কে চিকিৎসার জন্য পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ইয়াছিনের অবস্থা অবনতি হলে তাকে
উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। ইয়াছিনের মা এবং তার স্ত্রী জরিনা খাতুন কে পাবনা মেডিকেল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।
রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার দিবাগত রাত আড়াইটার সময় ইয়াছিনের মৃত্যু হয়।
ঘটনার সংবাদ পেয়ে পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) ইবনে মিজান এবং পাবনা থানার অফিসার ইনচার্জ নাছিম আহমেদ
ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ঘটনাস্থল ভজেন্দ্রপুর গ্রামে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
আবদুল জববার