প্রধান মেনু

পাবনায় মানবিক সেবার অনন্য দৃষ্টান্ন

স্টাফ রিপোর্টার: পাবনায় মানবিক সেবার অনন্য দৃষ্টান্ন স্থাপন করেছেন পাবনা পুলিশ প্রশাসন, মানবধিকার সংগঠন, স্থানীয় সৈয়দ ফজলুর রহমান, মমতাজ বেগম ও সৈয়দ মুন্তাজ আলী দুস্থ কল্যাণ ট্রাষ্ট এবং স্থানীয় এলাকাবাসী।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে প্রায় দেড়মাস যাবত ধরে একজন অজ্ঞাত বৃদ্ধ মহিলা পাবনা-ঈশ্বরদী মহাসড়কে ০৬ কিলোমিটার স্থানে (বড়ব্রীজ সংলগ্ন) রাস্তার ধারে ঝুঁকিপন্ন অবস্থায় অবস্থান করছে। মহিলাটির আনুমানিক বয়স ৮০ বছর। সে কোন কথা বলতে না পারায় তার নাম ঠিকানা জানা সম্ভব হয় নি। অত্যন্ত জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মহিলার অবস্থান দেখে প্রথমে তাকে সাহায্যের হাত বাড়ায় স্থানীয় এলাকাবাসী। তারা প্রতিদিন মহিলাকে ভাত রুটি ও পানি খাওয়াতে থাকেন। পরবর্তীতে সংবাদ পেয়ে পাবনা পুলিশ প্রশাসন, জেলা মানবধিকার সংগঠন (আইএইচসিআরপি), এবং সৈয়দ ফজলুর রহমান ও মমতাজ বেগম এবং সৈয়দ মুন্তাজ আলী দুস্থ কল্যাণ ট্রাষ্ট। এই ট্রাষ্টের পরিচালক সৈয়দ মুন্তাজ আলী গত ১৭ আগষ্ট থেকে প্রতিদিন সকাল এবং বিকালে দুইবেলা ভাত, ডিম, কলা, রুটি খাইয়ে মহিলার জীবন রক্ষার্থে সহায়তা করে আসছেন। কল্যাণ ট্রাষ্টের উদ্যেগে মহিলাটি যেখানে অবস্থান নিয়েছেন সেখানে বাঁশ/খুঁটি দিয়ে উপরে ছামিয়ানা টানিয়ে দেওয়া হয়েছে যাতে করে বৃষ্টির পানি যেন তার শরীরে না পরে। এছাড়াও মহিলাকে কোম্বল এবং কাপড় দেওয়া হয়েছে। মহিলাটির চোখ ও মুখ ফুলে গেছে। তিনি বর্তমানে অসুস্থ।
গতকাল সোমবার বেলা ১২ টার দিকে সরজমিনে পাবনা থানার এ.এস.আই রবিউল ইসলাম এর নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। এ সময় ইন্টারন্যাশনাল হিউম্যানরাইটস্ ক্রাইম রিপোটার্স ফাউন্ডেশন পাবনা জেলা কমিটির সভাপতি সাংবাদিক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল জব্বার মহিলাটির অবস্থান নেওয়া স্থানে উপস্থিত হন। এরপর সৈয়দ ফজলুর রহমান ও মমতাজ বেগম এবং সৈয়দ মুন্তাজ আলী দুস্থ কল্যাণ ট্রাষ্টের পরিচালক সৈয়দ মুন্তাজ আলী সেখানে উপস্থিত হন। সকলে মিলে মহিলাকে বিভিন্ন খাবার পরিবেশন করেন।
বিষয়টি পাবনা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: জয়নাল আবেদিন কে জানানো হয়েছে। তিনি বৃদ্ধ মহিলা থাকা খাওয়া সহ রক্ষণা বেক্ষণের জন্য সমাজ কল্যাণ অধিদপ্তরকে জানিয়েছেন। পাবনা জেলা সমাজ কল্যাণ অধিদপ্তরের প্রবেশন অফিসার মোঃ পল্লব ইবনে শায়েখ আমাদের প্রতিনিধিকে জানিয়েছেন, ২৪ আগষ্ট মহিলাকে উদ্ধার করে নিয়ে আসা হবে। এরপর সরকারি উদ্যেগে তার থাকা খাওয়া চিকিৎসাসহ স্থায়ী বসবাসের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।