প্রধান মেনু

পাবনা ড্রামা সার্কেলের ৩৯ বছর পূর্তি উৎসব উদযাপিত

‘আসবে সুদিন কাটবে আধার, জ্বলবে আলো মঞ্চে আবার’ স্লোগানে পাবনার অন্যতম নাট্য সংগঠন পাবনা ড্রামা সার্কেলের ৩৯ বছর পূর্তি উৎসব উদযাপিত হয়েছে। করোনার কারনে স্বল্প পরিসরে অত্যন্ত সচেতনার সাথে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে শনিবার (১৩ জুন) সংগঠনের নিজ কার্যালয়ে এই অনুষ্ঠান করা হয়।
অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে বেলা ১১টায় দলীয় ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন সংগঠনের সভাপতি ওহিদুল কাওারসহ আজীবন সদস্যরা। পরে বর্ষপূর্তি শুরু হয় কেক কাটা, মধুমাসের ফল উৎসব ও আলোচনা সভা।

পাবনা ড্রামা সার্কেলের নিজ কার্যালয় শহরের সজনে তলায় শুরু হয় ফল উৎসব। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, সংগঠনের সকল আজীবন সদস্য ও সকল নাট্যকমীরা। সেখানে দেশীয় বিভিন্ন ফল দিয়ে আপ্যায়ন করানো হয়।

পরে বেলা সাড়ে ১২টায় ওহিদুল কাওসারের সভাপতিত্বে ও ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক সাইফুল ইসলাম আজমের পরিচালনায় বক্তব্য দেন, দলের জীবন সদস্য ও নাট্যকার নির্দেশক দোলন আজিজ, সাবেক সভাপতি সিরাজুল ইসলাম হীরা, হাফিজ রতন, ভাস্কর চক্রবর্তী, সিরাজুল ইসলাম পিন্টু, জীবন সদস্য সৈকত আফরোজ আসাদ, তরুন দাস মদন, আমিনুল ইসলাম, সিনথী রহমান, খাইরুল শিহান, বরকত উল্লাহ শিমুল, আনোয়ার হোসেন, হাসিব আল হাসান, মাহমুদা ক্যাথী, শিশির ইসলাম, কিরন মালা, শিহাব রাজ, আতিকুল ইসলাম প্রমুখ বক্তব্য দেন।
আলোচনা সভা শেষে মিলনমেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে সংগঠনের সদস্যরা গান পরিবেশন করা হয়।

প্রসঙ্গত ১৯৮১ সালের ১৩ জুন পাবনা শহরের শালগাড়িয়া অশোক স্কুলে এই নাট্য সংগঠনটির যাত্রা শুরু হয়। এ পর্যন্ত সংগঠনটি নিজস্ব প্রযোজনায় ৪৫ টি নাটক মঞ্চায়িত করা হয়েছে। এছাড়াও সংগঠনটি নাটকের পাশাপাশি জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবস পালন, দেশের কান্তিকাল বন্যা, খড়া, ঘুর্নিঝড়ে দেশের অসহায় মানুষের পাশে আবস্থান নেয়া, স্বৈরাচার আন্দোলন ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দাবিতে নানা কর্মসূচি পালন করে আসছে। রাজপথ ও শহীদ মিনারে আল্পনা অঙ্কন, মুক্তিযুদ্ধের আলোকচিত্র প্রদর্শন করে থাকে। মাদক বিরোধী অভিযান থেকে শুরু করে বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ড পরিচালনা করে থাকেন।