প্রধান মেনু

পুলিশ প্রধান বেনজীর, র‌্যাব মহা পরিচালক আব্দু্ল্লাহ আল মামুন

পুলিশের নতুন মহা পরিদর্শক (আইজিপি) হিসেবে নিয়োগ পেলেন র‍্যাবের বর্তমান মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ। একই সঙ্গে সিআইডি প্রধান আব্দুল্লাহ আল মামুন র‍্যাবের মহাপরিচালক হয়েছেন। অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শক পদমর্যাদার বেনজীরকে পুলিশের শীর্ষ এ পদে নিয়োগ দিয়ে বুধবার (৮ এপ্রিল) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ থেকে আদেশ জারি করা হয়েছে। বর্তমান আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারীর স্থলাভিষিক্ত হবেন বেনজীর আহমেদ। আর বর্তমান র‍্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদের স্থলাভিষিক্ত আবদুল্লাহ আল মামুন। ১৫ এপ্রিল থেকে জারিকৃত এ আদেশ কার্যকর হবে।

বেনজীর আহমেদ র‍্যাবের মহাপরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। নতুন আইজিপি হিসেবে আগে থেকেই আলোচনায় ছিল তার নাম। মেধাবী, সৎ ও চৌকোস পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে বেনজীর আহমেদের পরিচিতি রয়েছে। সপ্তম বিসিএস পুলিশ ক্যাডারের কর্মকর্তা বেনজীর আহমেদ ১৯৮৮ সালে সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) হিসেবে চাকরিতে যোগ দেন। বেনজীর আহমেদের গ্রামের বাড়ি গোপালগঞ্জে। র‌্যাবের ডিজির দায়িত্ব পালনের আগে প্রায় সাড়ে চার বছর ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার হিসেবে নিয়োজিত ছিলেন।

তিনি জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা বিভাগে চিফ অব মিশন ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড সাপোর্ট সার্ভিসেস হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থিত জাতিসংঘ সদরদফতরে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পদে কাজ করেছেন। কর্মদক্ষতায় তিনবার জাতিসংঘ শান্তি পদক অর্জন করেন। এ ছাড়া তিনি পুলিশের পেশাগত সর্বোচ্চ পদক বাংলাদেশ পুলিশ মেডেল (বিপিএম) অর্জন করেন তিনি।
আর র‍্যাবের নতুন মহাপরিচালক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুনের বাড়ি সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার শ্রীহাইলে। সিআইডি প্রধানের দায়িত্বের আগে তিনি ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি ছিলেন। এর আগে গতকাল মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই সংক্রান্ত সারসংক্ষেপে অনুমোদন দেন।
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সূত্র জানায়, গত সোমবার মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পুলিশের আইজির মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার আগেই নতুন আইজি নিয়োগের জন্য দ্রুত সারসংক্ষেপ পাঠাতে মন্ত্রী ও সচিবকে নির্দেশনা দেন। এরপর গত সোমবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বাসায় জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন, অতিরিক্ত সচিব মু. মোহসিন চৌধুরী, যুগ্মসচিব (পুলিশ-১) ড. মো. হারুন অর রশিদ বিশ্বাস, উপসচিব (পুলিশ-১) ধনঞ্জয় কুমার দাসকে নিয়ে এক বৈঠকে সারসংক্ষেপ তৈরি করেন।