প্রধান মেনু

বগুড়ায় কর্মহীন মানুষের ঘরে ঘরে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিলেন সমাজসেবক পরিমল প্রসাদ

স্টাফ রিপোর্টার: কোভিড-১৯ বা নোভেল করোনাভাইরাস এর সংক্রমণ প্রতিরোধে সারাদেশে যখন চলছে অঘোষিত লকডাউন তখন নিজ নিজ বাড়িতে থাকা সাধারণ মানুষগুলোর মাঝে দেখা গেছে ভিন্ন চিত্র। সমাজের একশ্রেণীর মানুষ যখন নিজেদের সঞ্চয় বা মজুদ করে রাখা খাদ্যসামগ্রী দিয়ে পরিবারের সাথে দিন কাটাচ্ছে তখন অপরদিকে বগুড়ায় খেটে খাওয়া দিন-মজুরেরা অভাবে কোনমতো খেয়ে দিন পার করছে আর অপেক্ষা করছে কে একটু সাহায্যের হাত বাড়াবে? এমন সময় সরকারের নানামুখী কর্মসূচীর পাশাপাশি বগুড়ায় এগিয়ে এসেছে রাজাবাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও বিশিষ্ট সমাজসেবক পরিমল প্রসাদ রাজ। সোমবার সকাল থেকে বগুড়ার কলোনী, চেলোপাড়া, নাটাইপাড়া, দত্তবাড়ি এবং রাজাবাজারের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে ঘুরে খেটে খাওয়া প্রায় ২ শতাধিক দিনমজুর, শ্রমিক, রিক্সা-ভ্যান চালক ও অসহায় মানুষের বাড়ির দরজায় গিয়ে গিয়ে তাদের হাতে খাদ্য-সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন জার্নালবিডি২৪.কম এর প্রকাশক মানবিক এই ব্যবসায়ী নেতা। খাদ্য সামগ্রীস্বরুপ ৫ কেজি চাল, হাফ কেজি ডাল, ২ কেজি আলু, ১ কেজি পেঁয়াজ, ১ কেজি লবণ এবং ১ লিটার সয়াবিন তেল বিতরণ করা হয়েছে অসহায় মানুষগুলোর মাঝে। মানুষের ঘরে ঘরে এই খাদ্যসামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন পদ্মা ব্যাংক বগুড়া শাখার ব্যবস্থাপক আনোয়ার সাদাত, জেলা মোবাইল ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক শেখর রায়, বগুড়া ইয়ূথ ফোরামের সভাপতি এবং দৈনিক চাঁদনী বাজারের স্টাফ রিপোর্টার সঞ্জু রায়, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজেবক যথাক্রমে রুহুল আমিন, ইউসুফ আলী, রাজিব ফরহাদ, রাজু আহম্মেদ, সুদেব দাস, সাগর, ৬ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী শান্ত প্রমুখ। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দেশের এই ক্রান্তিকালে সরকারের পাশাপাশি সমাজের সকলকে অসহায়দের পাশে দাঁড়ানোর উদ্বার্ত আহব্বান জানিয়ে মানবিক এই ব্যবসায়ী নেতা পরিমল প্রসাদ রাজ বলেন, আমাদের সমাজের অগণিত মানুষ আছে যাদের এখনো বাড়ি থেকে বের হয়ে কর্ম না করলে পরিবারের কারো মুখে দু-মুঠো ভাত উঠবে না কিন্তু জীবন বাঁচাতে সরকারি নির্দেশনা মেনে সেই খেটে খাওয়া দিনমজুরেরা আজ নিজ বাড়িতে অবস্থান করছে। ভিড় এড়িয়ে ঘরে ঘরে গিয়ে তার এই খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেয়ার কার্যক্রম চলমান থাকবেও বলে জানান তিনি। সেই সাথে তিনি সরকারের সকল নির্দেশনার প্রতি ভরসা রেখে সাধারন মানুষকে পরিচ্ছন্ন ও সচেতন থাকার মাধ্যমে নিজেদের ও নিজেদের সমাজকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সুরক্ষিত রাখতে আহব্বান জানান।