প্রধান মেনু

ব্রাজিলের পর দক্ষিণ আফ্রিকায় ভ্যাকসিনের ট্রায়াল শুরু করলো অক্সফোর্ড

ব্রাজিলের পর এবার দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনা ভ্যাকসিনের ট্রায়াল শুরু করেছে যুক্তরাজ্য্যের অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি। এতদিন জেন্না ইনস্টিটিউট ও অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় করোনা ভ্যাকসিনের প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল ব্রিটেনে চালিয়েছে। প্রথমবারের মতো এবার দেশের বাইরে গিয়ে করোনার ভ্যাকসিনের ট্রায়াল শুরু করলো অক্সফোর্ডের ভাইরোলজিস্ট সারা গিলবার্টের দল।

দক্ষিণ আফ্রিকায় অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের তত্ত্বাবধানে রয়েছে উইটস ইউনিভার্সিটি। দক্ষিণ আফ্রিকায় ইতোমধ্যে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে ৪ হাজার জনের নাম নথিভুক্ত করা হয়েছে। জানা গেছে, প্রথম ধাপে দুই হাজার জনের শরীরে করোনার ভ্যাকসিন দেয়া হবে। আর পরবর্তী ধাপে আরো দুই হাজার মানুষের শরীরে এই ভ্যাকসিনের ট্রায়াল চালানো হবে।

অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিনের ট্রায়ালের বিষয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার উইটস ইউনিভার্সিটির গবেষক শাবির মাধি বলেন, প্রথম যে দুই হাজার জন করোনার ভ্যাকসিন নিচ্ছেন তারা বেশি ঝুঁকিতে রয়েছেন। এদের মধ্যে আবার ৫০ জন এইচআইভি পজিটিভ রোগী আছেন। ভ্যাকসিন দেয়ার পর তাদের চার সপ্তাহ পর্যবেক্ষণে রাখা হবে এবং রক্তে কেমন অ্যান্টিবডি তৈরি হলো সেটি খতিয়ে দেখা হবে।

এদিকে ব্রাজিলেও অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের তৈরি করোনার ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শুরু হয়েছে। বুধবার ফেডারেল ইউনিভার্সিটি অব সাও পালো এ তথ্য জানিয়েছে।

লেমানন ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ব্রাজিলে করোনার হটস্পট সাও পাওলো ও রিও ডি জেনিরোতে মোট ৩ হাজার জনকে দেয়া হচ্ছে ভ্যাকসিন। তার মধ্যে ডাক্তার, স্বাস্থ্যকর্মী-সহ সাও পাওলোতে ২ হাজার ও রিও ডি জেনিরোতে ১ হাজার মানুষকে দেয়া হচ্ছে অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন।