প্রধান মেনু

বড়াইগ্রামে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচার ছড়ানোয় যুবককে গণধোলাই, থানায় জিডি

নাটোর প্রতিনিধি:
নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার চান্দাই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আনিসুর রহমান সরকারের বিরুদ্ধে ফেসবুকে মিথ্যা অপপ্রচার ছাড়ানোয় উজ্জল হোসেন (২৫) নামের এক যুবককে গণধোলাই দিয়েছে এলাকার বিক্ষুব্ধ জনগণ। অপপ্রচারকারি উজ্জল ওই ইউনিয়নের তেলো গ্রামের সাইফুল ইসলামের ছেলে। গত বুধবার বিকেলে স্থানীয় কয়েকজন বিক্ষুব্ধ জনগণ উজ্জ্বলের বাড়িতে এসে ফেসবুক থেকে মিথ্যা অপপ্রচার বন্ধ করার অনুরোধ করেন। এতে উজ্জল উত্তেজিত হয়ে তর্ক শুরু করলে জনগণ তাকে গণধোলাই দিয়ে পরিবারের অভিভাবকের কাছে তুলে দেন এবং দ্রুত ফেসবুক থেকে অপপ্রচার তুলে নিতে অনুরোধ করেন। এদিকে শুক্রবার সকালে ইউপি চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান এ বিষয়ে বড়াইগ্রাম থানায় উপস্থিত হয়ে সাধারন ডাইরি (জিডি) করেছেন (বড়াইগ্রাম থানার জিডি নং-৫২৯/১৭ এপ্রিল ২০২০)।
ভান্ডারদহ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দেলোয়ার হোসেন জানান, তার জানা মতে আনিসুর রহমান স্থানীয় ইউপি সদস্য ও সুধীসমাজকে নিয়ে স্বচ্ছতার ভিত্তিতে ত্রাণ বিতরণ করছেন। চেয়ারম্যান আনিসের  বিরুদ্ধে স্বজনপ্রীতি বা কোন অস্বচ্ছতার প্রমাণ পাওয়া যায়নি । ফেসবুকে তার ব্যাপারে যারা অপপ্রচার করেছেন তারা অন্যায় করেছেন।
চান্দাই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের অন্যতম সদস্য জিয়াউর রহমান সরকার এবিষয়ে ফেসবুকে লিখেছেন, চাঁন্দাই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আনিসুর রহমান সরকারের সততা ও স্বচ্ছতার ব্যপারে বড়াইগ্রাম উপজেলার সকল শ্রেনী পেশার মানুষ অবগত। তিনি পর পর দুইবার জনগনের ভোটে নির্বাচিত চেয়ারম্যান। তিনি কোন দিন জনগনের হক আত্মসাৎ করাতো দুরের কথা, পরিষদে কোন অনিয়ম হতে দেন নাই। কিন্তুু চান্দাই ইউনিয়ন এর কয়েকজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী (ইতিমধ্যে একাধিক মাদক মামলার আসামী) ও গুটিকয়েক মাদকসেবীরা চেয়ারম্যানের বিরোদ্ধে মিথ্যা গুজব সৃষ্টি করার পাঁয়তারা করছে। এদের মুল উদ্দেশ্য প্রশাসন এবং এমপি সাহেবকে বিব্রতকর পরিস্থিতির মুখামুখি করা। আমি মনে করি প্রশাসনের উচিত এই সকল গুজব সৃষ্টিকারীদের ধরে সত্যতা যাচাই করে আইনানুগ দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তির ব্যবস্হা করা। অন্যথায় চান্দাই ইউনিয়ন এ আইনশৃঙ্খলার অবনতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিলিপ কুমার দাস জানান, ফেসবুকে গুজব সৃষ্টিকারীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা হবে।