প্রধান মেনু

ভাঙ্গুড়ায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে কিশোর আটক

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি
পাবনার ভাঙ্গুড়ায় ৪ বছরের শিশু কন্যাকে ধর্ষণের অভিযোগে নাঈম হোসেন (১৫) নামে এক কিশোরকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী। রবিবার সন্ধ্যায় উপজেলার প্রত্যন্ত খানমরিচ ইউনিয়নের সুলতানপুর গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। নাঈম ওই গ্রামের মোখলেসুর রহমানের ছেলে। এ ঘটনায় ভাঙ্গুড়া থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের হয়েছে।
মামলার এজাহার ও পরিবারের সাথে কথা বলে জানা যায়, রবিবার সন্ধ্যায় উপজেলার খানমরিচ ইউনিয়নের সুলতানপুর গ্রামে নিজ বাড়ির উঠানে আট বছরের ও চার বছরের দুই শিশু কন্যা খেলা করছিল। এসময় প্রতিবেশী নাঈম ওই দুই শিশুকে জাম্বুরা দেয়ার কথা বলে নিজের ঘরে নিয়ে যায়। ঘরে নিয়ে তাদেরকে ধর্ষণের চেষ্টা করলে আট বছরের ওই শিশুটি দৌড়ে পালিয়ে যায়। কিন্তু নাঈম চার বছরের শিশুকে মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের সময় শিশুটি চিৎকার করলে প্রতিবেশীরা গিয়ে তাকে উদ্ধার করে এবং নাঈমকে পিটুনি দিয়ে আটকে রাখে। পরে তারা থানায় খবর দিলে পুলিশ গিয়ে ধর্ষিতা শিশু ও ধর্ষক কিশোরকে থানায় নিয়ে আসে। রাতে থানা পুলিশের সহযোগিতায় ধর্ষণের শিকার শিশুটিকে ভাঙ্গুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দিয়ে থানায় ফেরত নিয়ে আসা হয়। এদিকে এ ঘটনায় রাতেই ওই শিশুটির বাবা ভাঙ্গুড়া থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।
উপজেলার খানমরিচ ইউনিয়নের সুলতানপুর গ্রামের ইউপি সদস্য জামাল উদ্দিন বলেন, ধর্ষণের সময় এলাকাবাসী কিশোর নাঈমকে হাতেনাতে আটক করেছে। পরে ধর্ষণের বিষয়ে নাঈমের স্বীকারোক্তির কারণে তাকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে।
ভাঙ্গুড়া থানার ডিউটি অফিসার এএসআই মুকিম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ধর্ষিত শিশুকে উদ্ধার করে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পাবনা সদর হাসপাতালে এবং ধর্ষককে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।