প্রধান মেনু

মানবিক সাহায্যে হাত বাড়াতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তিনটি স্ট্যটাস দৃষ্টি কেড়েছে সবার

করোনাভাইরাস নিয়ে আতংক যেন কাটছেই না। দিন দিন মনে হয় আরো বাড়ছে শঙ্কার পরিমাণ। তার মধ্যে সবাইকে ঘরে থাকার আহবান সর্বস্তরে। বন্ধ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। তারপরও ঘরবন্দি মানুষ জরুরী প্রয়োজনে ঘরের বাইরে যেতে বাধ্য হচ্ছেন। কারো বা বাজার থেকে নিত্যপণ্য বা ওষুধ এনে দেবার মতো কেউ নেই।

অপরদিকে, জেলা-উপজেলা প্রশাসনও হিমশিম খাচ্ছে বিভিন্ন দিক দেখভাল করতে গিয়ে। কখনও বাজারে লোকসমাগম কমাতে, কখনও মোবাইল কোর্ট পরিচালনা, কখনওবা কর্মহীনদের পরিবারে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দিতে ব্যস্ত সময় কাটছে তাদের।
তবে এমন পরিস্থিতির মাঝে পাবনার চাটমোহরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তিনটি স্ট্যটাস দৃষ্টি কেড়েছে সবার। অনেকের কাছে হয়তো স্বস্তির খবর। এ যেন মানুষের সেবায় এক অভিনব এগিয়ে আসা।
তাদের মধ্যে সংবাদকর্মী হাবিবুর রহমান শিমুল বিশ্বাস ঘরবন্দি মানুষ যাদের বাইরে যাওয়ার মতো মানুষ নেই তাদের জরুরী খাদ্য ও ওষুধ বাজার থেকে নিয়ে বাড়িতে পৌঁছে দিতে চেয়েছেন। অন্যজন সঙ্গীত শিক্ষক দেওয়ান জামিউল ইসলাম কাবলী উপজেলা প্রশাসনের ফোন কলে খাদ্য পৌঁছে দেয়ার কাজে সহযোগিতা করার আগ্রহ দেখিয়েছেন। আর ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল ওয়াহেদ বকুলসহ তিন বন্ধু জরুরী খাদ্য সামগ্রী বাড়িতে পৌঁছে দিতে সহযোগিতা করার আগ্রহ দেখিয়েছেন। পণ্য হাতে পেয়ে তারপর টাকা পরিশোধ করা যাবে।
সম্প্রতি তাদের এ আগ্রহের কথা জানিয়ে নিজেদের ফেসবুক ওয়ালে পোস্ট দিয়েছেন। দৈনিক আমার সংবাদের চাটমোহর প্রতিনিধি হাবিবুর রহমান শিমুল বিশ্বাস লিখেছেন ‘করোনা ভাইরাস কারনে চাটমোহরে বসবাসরত কেউ বাইরে বের হবেন না। বাইরে গিয়ে নিত্যপণ্য, ঔষুধ আনার মতো যাদের কেউ নেই। তারা নির্দিধায় আমাকে ফোন দিবেন। আমি ও আমার মোটর সাইকেল সবসময় প্রস্তত। আপনি টাকা আর লিস্ট হাতে ধরিয়ে দেবেন। আমি যতো দ্রুত সম্ভব আপনার দোরগোড়ায় পৌঁছে দেব। তবুও করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সবাই ঘরে থাকুন। নিরাপদে থাকুন। শিমুলকে ফোন করে সেবা নিতে যোগাযোগ করুন ০১৭৫০-০৯৭৫২১ এই নাম্বারে।
অন্যদিকে, চাটমোহরের সঙ্গীত শিক্ষক ওস্তাদ সাংবাদিক দেওয়ান জামিউল ইসলাম কাবলী তার ফেসবুক ওয়ালে লিখেছেন, ‘চাটমোহরের ইউএনও সাহেব গরীব দুস্থদের বাড়ি বাড়ি খাদ্য পৌঁছে দিচ্ছেন। আমি এর বাহক হতে চাই। আমি সেচ্ছাসেবী হিসেবে খাদ্য পৌঁছে দিতে সহযোগিতা করবো। যদি আমাকে ইউএনও সাহেব সে সুযোগ দেন। মোবাইল নাম্বার: ০১৭১৮-৩০৯৭০০।’
চাটমোহর সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল ওয়াহেদ বকুল তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘ঘরে থাকুন, নিজে ভাল থাকুন, পরিবার বাঁচান, দেশ বাঁচান। জরুরী খাদ্য সামগ্রীর জন্য আমাদের সহায়তা নিতে পারেন। আমরা আপনার বাসায় গিয়ে পৌঁছে দিয়ে আসবো। শুধুমাত্র পণ্য হাতে পাবার পর পণ্যের বিল পরিশোধ করবেন। শুধুমাত্র চাটমোহর পৌর সদরের জন্য। তাদের সাথে যোগাযোগের নাম্বার : বকুল ০১৭৪৩-৪৪৯৫৮৫, শিহাব ০১৭৩৭-২১৪৭৪৭, সাগর ০১৭৪৫-৯৬৪৯১৬।’
ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল ওয়াহেদ বকুল বলেন, মানুষ হিসেবে বিপদগ্রস্থ মানুষের পাশে দাঁড়ানোর অংশ হিসেবে মুলত আমরা তিন বন্ধু এই উদ্যোগ নিয়েছি। ইতিমধ্যে আমরা রোববার সকালে দুইজনের নিত্যপণ্য বাজার ও ওষুধ কিনে বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছি। হাতে পাবার পর তারা পণ্য ও ওষুধের দাম পরিশোধ করেছে।
সংবাদকর্মী হাবিবুর রহামান শিমুল বিশ্বাস বলেন, শুধু সংবাদ নিয়ে কাজ করার বাইরে আমি একজন মানুষ। আমরা অনেক মানবিক বিষয় নিয়ে সংবাদ লিখি। এবার তার বাইরে গিয়ে দেশের দূর্যোগের সময় অসহায় মানুষের কাজে লাগতে চাই। ইতিমধ্যে আমি একজনের ফোন পেয়ে তার বাড়িতে গিয়ে প্রেসক্রিপশন নিয়ে ওষুধ কিনে বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছি।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরকার মোহাম্মদ রায়হান বলেন, সরকার বা স্থানীয় প্রশাসনের একার পক্ষে দেশের এই দুর্যোগ মোকাবেলা করা ও মানুষের পাশে দাঁড়ানো সম্ভব নয়। সেক্ষেত্রে সমাজের অন্যপেশার মানুষদেরও ভূমিকা নিতে হবে। সেই হিসেবে তিন পেশার তিন মানুষ যে মানবিক উদ্যোগ নিয়েছে সত্যি প্রশংসনীয়। প্রয়োজনে উপজেলা প্রশাসন তাদের সহযোগিতা নিয়েও কাজ করবে।