প্রধান মেনু

মুক্তিযুদ্ধের ৮ নং সেক্টর কমান্ডার লেপ্টেন্যান্ট কর্ণেল (অব.) আবু ওসমান চৌধুরীর মৃত্যুতে সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’৭১ পাবনা জেলা শাখা’র শোক প্রকাশ

মহান মুক্তিযুদ্ধের ৮নং সেক্টর কমান্ডার এবং মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী গঠিত সেক্টর কমান্ডারস্ ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’৭১ এর কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি লেপ্টেন্যান্ট কর্ণেল (অব.) বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু ওসমান চৌধুরীর মারা গেছেন। শনিবার (০৫’ সেপ্টেম্বর) সকালে রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর।

আবু ওসমান চৌধুরীর মেয়ে নাসিমা তারিক জানান, বেশ কিছুদিন যাবৎ বাবা বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে সিঙ্গাপুর নেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু শুক্রবার রাতে বাবার শারিরীক অবস্থার অবনতি হলে রাজধানীর সিএমএইচ হাসপাতালে আজ শনিবার সকালে তিনি মারা যান।

মহান মুক্তিযুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনকারী লেপ্টেন্যান্ট কর্ণেল (অব.) আবু ওসমান চৌধুরী মুক্তিযুদ্ধের ৮ নং সেক্টরে এবং মুক্তিযুদ্ধের পরবর্তী গঠিত সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম- মুক্তিযুদ্ধ’৭১ সংগঠনে নিবেদিত প্রাণ হিসাবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন।

আবু ওসমান চৌধুরী ১৯৩৬ খ্রি. ১ জানুয়ারি চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার মদনেরগাঁও গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ থেকে বিএ পাস করার পর ১৯৫৮ খ্রি. পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়ার পর কমিশন পান। ১৯৬৮ খ্রি. এপ্রিল মাসে পদোন্নতি পেয়ে মেজর হন।

মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে আবু ওসমান চৌধুরী পাকিস্তান সেনাবাহিনীর একজন মেজর পদে কুষ্টিয়ায় কর্মরত ছিলেন। অপারেশন সার্চলাইটের সংবাদ পেয়ে ২৬ মার্চ বেলা ১১টায় তিনি চুয়াডাঙার ঘাঁটিতে পৌঁছে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করেন এবং মুক্তিযুদ্ধে যোগ দেন।

বাংলাদেশ সরকার মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে দেশের দক্ষিণাঞ্চলের কুষ্টিয়া, যশোর, খুলনা, বরিশাল, ফরিদপুর ও পটুয়াখালী জেলা নিয়ে গঠিত ৮ নং সেক্টরের দায়িত্বে তাঁকে নিয়োগ করেন। তিনি মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে মুজিবনগর সরকার গঠনের সময় গুরুত্বপূর্ন দায়িত্ব পালন করেন। বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে তাঁর বীরত্বগাঁথা ও অবদান জাতি বিনম্র শ্রদ্ধায় স্মরন করবে।

সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’৭১ পাবনা জেলা শাখা’র সভাপতি, বীর মুক্তিযোদ্ধা আ. স. ম. আব্দুর রহিম পাকন, সাবেক সংসদ সদস্য ও ফোরামের সিনিয়র সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন সন্টু, সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এ কে এম কামরুল ইসলাম ফুটু, সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. মোমিনুর রহমান বরুণ, গবেষণা ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিরুল ইসলাম রাঙ্গা, দপ্তর সম্পাদক সাংবাদিক শফিক আল কামাল, আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড. দেওয়ান মজনুল হক, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মোছা. হেলেনা খাতুন ও যুব বিষয়ক সম্পাদক জেবুন্নছা ববিনসহ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এক বিবৃতিতে তাঁর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেন। সেই সাথে তাঁর বিদেহী আত্মা’র মাগফিরাত কামনা করে শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানানো হয়।