প্রধান মেনু

দূর্ণীতি তদন্ত ও শাস্তির দাবিতে প্রধান মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

রুপপুর পরমাণু প্রকল্পের পিডি শওকত আকবর ও সাইট ইনচার্জ রুহুল কুদ্দুসের বিরুদ্ধে গ্রীনসিটি এলাকায় মানব বন্ধন,সমাবেশ ও বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত

ঈশ্বরদী ॥ রুপপুর পরমাণু প্রকল্পের পিডি শওকত আকবর ও সাইট ইনচার্জ রুহুল কুদ্দুসের ব্যাপক দূর্ণীতি তদন্ত ও শাস্তির দাবিতে প্রধান মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে গ্রীনসিটি এলাকায় মানব বন্ধন,সমাবেশ ও বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকালে ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিক ও এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে পাকশী বাইপাস মহাসড়কের গ্রীনসিটি এলাকায় এসব কর্মসুচি পালন করা হয়েছে। আওয়ামীলীগ নেতা জুলমত হায়দারের সভাপতিত্বে ঘন্টাকাল ব্যাপি অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য দেন,সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি সূর্য্য নাথ মন্ডল,মোবারক হোসেন,ব্যবসায়ী মারুফ হোসেন,মলিনা বেগম,লিপন মেম্বর,আইরিন খাতুন,আব্দুর রশিদ,বাবলু মালিথা,শিক্ষার্থী আশিকসহ অন্যরা। বক্তারা বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের জন্য ব্যবসায়িক ক্ষতিপূরণ,বর্তমান বাজার মূল্যের সাথে সংগতি রেখে জমির মূল্য পূণঃসংযোজনসহ ছয় দফা দাবি পূরণ এবং দূর্ণীতির বিচার দাবি করে বলেন,গ্রীনসিটির কাজের শুরুতে প্রকল্পের কর্মকর্তারা কোটি কোটি টাকার গাছ ও বিল্ডিংয়ের ইট বিক্রি করে লোপাট করেছেন এবং প্রকল্পের কাজে দূর্ণীতি অব্যাহত রেখেছেন যে সব কর্মকর্তারা। সেই কর্মকর্তারাই পরিকল্পিতভাবে ভয় দেখিয়ে জোরপূর্বক পানির দামে এলাকাবাসীকে পৈত্রিক জমি এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে উচ্ছেদের ষড়যন্ত্র করছেন। বক্তারা আরও বলেন, রুপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের আওতাধীন গ্রীনসিটির বর্ধিত করণের লক্ষ্যে আমাদের ৯এলাকাবাসীদের) ৬ দশমিক ৬০ শতাংশ জমি অধি গ্রহণ করার জন্য ইতি মধ্যে হুকুম দখল কর্মকর্তা পাবনা কর্তৃক নোটিশ প্রদান করেছেন। নোটিশে উল্লেখ করা হয়েছে বাগান প্রতি শতাংশ ৪৫ হাজার ৪’শ ৮৪ টাকা,বাঁশ ঝাড় প্রতি শতাংশ ৪৭ হাজার ৫’শ ৮৮ টাকা, ভিটা প্রতি শতাংশ ৫৩ হাজার ৬’শ ৫৭ টাকা এবং বাড়ি প্রতি শতাংশ ৮৩ হাজার ৩’শ ৫ টাকা হিসেবে জমির মুল্য ধরা হয়েছে। কিন্তু আমাদের এলাকার জমির বর্তমান বাজার মূল্য প্রতি শতাংশ সর্ব নি¤œ ২ লাখ টাকা এবং সর্বোচ্চ মূল্য ৬ লাখ টাকা। তারা প্রকল্পে কর্মরত কর্মকর্তাদের দুর্ণীতির তদন্ত ও সুষ্ঠ বিচার নিশ্চিত কল্পে প্রধান মন্ত্রীর জরুরি হস্তক্ষেপও কামনা করেন।