প্রধান মেনু

সভাপতি মনোনীত হয়েই সৌরভের হুঙ্কার

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) সভাপতির জন্য মনোনীত হয়েই বোর্ডের ভাবমূর্তি নষ্ট হতে দেবেন না বলে হুঙ্কার দিয়ে রাখলেন ‘প্রিন্স অব কলকাতা’ সৌরভ গাঙ্গুলী।

রোববার (১৩ অক্টোবর) ভারতের মুম্বাইয়ে বিসিসিআইয়ের অনানুষ্ঠানিক এক সভায় ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের কর্তাব্যক্তিরা গাঙ্গুলীকে বিসিসিআই সভাপতির জন্য মনোনীত করেন।

এদিন বোর্ড সভায় সভাপতির মনোনয়নের ইস্যু নাটকীয় মোড় নেয়। এতদিন শ্রীনিবাসনের ঘনিষ্ঠ ব্রিজেশ প্যাটেলকে এগিয়ে রাখা হচ্ছিল। কিন্তু বোর্ড সভায় গাঙ্গুলির নাম প্রস্তাব করেন সবাই। এরপর সভাপতি পদে মনোনয়ন জমা দেন ‘প্রিন্স অব কলকাতা’।

সোমবার (১৪ অক্টোবর) মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ সময়। গাঙ্গুলী বাদে এখন পর্যন্ত কোনো মনোনয়ন জমা পড়েনি। ফলে সভাপতি পদে নির্বাচনের সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। কোনো মনোনয়ন জমা না পড়লে গাঙ্গুলী সভাপতি নির্বাচিত হবেন।

সভাপতি মনোনীত হবার পর ভারতীয় সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে সৌরভ জানান, বোর্ডের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তাই এই সময়ে সভাপতি হতে পারায় খুশি। কিছু করার জন্য দারুণ সুযোগ পেয়েছি। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় হোক বা অন্যভাবেই হোক, এটা অনেক বড় দায়িত্ব। বিসিসিআই বিশ্ব ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় সংস্থা। ভারত হলো ক্রিকেটের পাওয়ারহাউস। এই দায়িত্ব তাই রীতিমতো চ্যালেঞ্জিং।

এছাড়া তিনি প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটারদের বেতন-ভাতা বৃদ্ধি নিয়েও কাজ করবেন বলে জানিয়েছেন।

এদিকে সভাপতি হিসেবে মনোনীত হওয়ায় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি সৌরভকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

এক টুইট বার্তায় মমতা বলেন, ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্ট মনোনীত হওয়ায় তোমাকে অন্তরের অন্তস্থল থেকে অভিনন্দন জানাই। তুমি ভারত ও বাংলার গর্ব। ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গলে তোমার কাজে আমরা গর্বিত।

বর্তমানে ৪৭ বছর বয়সী সৌরভ এখন ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গলের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। বিসিসিআইয়ের সভাপতি হলে এই পদ ছাড়তে হবে তাকে।