প্রধান মেনু

সাঁথিয়ায় ৩য় শ্রেণীর ছাত্রী ধর্ষিত, ধর্ষক আটক

সাঁথিয়া প্রতিনিধিঃ পাবনার সাঁথিয়ার কাশিনাথপুর বাজারে মোল্লা হোটেল এন্ড রেষ্টুরেন্টে ৩য় শ্রেণীর এক ছাত্রী ধর্ষিত হয়েছে। ধর্ষককে আটক করেছে পুলিশ।
থানায় মামলা সুত্রে জানা যায়, কাশিনাথপুর বাজারে মোল্লা হোটেল এন্ড রেষ্টুরেন্টে কাজ করত ধর্ষিতার মা। সে সুবাদে গত ৫ আগষ্ট সকালে ৩য় শ্রেণী পড়–য়া মেয়েটি (১১) তার মায়ের সাথে দেখা করতে যায়। মা বাইরে থাকায় হোটেল মালিক বাবুর ছেলে লম্পট নরপশু আব্দুল্লাহ (১৯) কৌশলে ওই শিশু কন্যাকে এক কক্ষে ডেকে নিয়ে জোড় পুর্বক ধর্ষন করে। ঘটনাটি মা-সহ কাউকে না জানানোর জন্য মেয়েটিকে মেরে ফেলাসহ বিভিন্ন হুমকি অব্যহত রাখে। মেয়েটি অসুস্থ্য হওয়ায় তার মা স্থানীয় চিকিৎসকের নিকট নিলে বিষয়টি জানালে ধর্ষনের বিষয় জানাজানি হয়। গরীব অসহায় ধর্ষিতার মা জয়নব সোমবার বাদী হয়ে সাঁথিয়া থানায় অভিযোগ দেন। থানা পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে ধর্ষক আব্দুল্লাহকে আটক করে। এব্যপারে থানায় নারী শিশু নির্যাতন আইনে মামলা হয়েছে। মামলা নং ৫, তারিখ ২/৯/২০১৯। মঙ্গলবার সকালে পুলিশ ধর্ষককে আদালতে প্রেরন করেছে। ধর্ষিতার মামা আঃ মান্নান বলেন, আবদুল্লাহ’র বাবা প্রভাবশালী হওয়ায় এবং মেয়েটিকে মেরে ফেলার হুমকিতে ভয়ে বিষয়টি গোপন রাখা হয়েছিল। তারা আতঙ্ক উৎকন্ঠার মধ্যে দিনানিপাত করছে।
সাঁথিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, থানায় ধর্ষন মামলা হয়েছে, আসামীকে আটক করে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে।
আতাইকুলায় গাজাসহ একজন আটক
সাঁথিয়া প্রতিনিধিঃ পাবনার আতাইকুলা থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে গাজাসহ একজন আটক করেছে। সে থানার ভবানীপুর নতুনপাড়া গ্রামের মৃত কারশেদ আলীর ছেলে দিরাজ আলী।
থানা সুত্রে জানা যায়, গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে থানার এসআই মোদাচ্ছের খান ফোর্সসহ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে থানার ভবানীপুর আহম্মদের বটতলা থেকে তাকে আটক করে। এসময় তার নিকট থেকে ৫০ গ্রাম ওজনের ২৫ পুড়িয়া গাজা উদ্ধার করে। থানায় মাদক আইনে মামলায় ওই দিনই তাকে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে। আতাইকুলা থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মনিরুজ্জামান বলেন, থানা এলাকাকে মাদক নির্মুলের অভিযানের অংশ হিসেবে তাকে আটক করা হয়েছে।