প্রধান মেনু

২০৩৪ সালের মধ্যে বাজেট হবে ট্রিলিয়ন ডলার: অর্থমন্ত্রী

বৈশ্বিক অর্থনীতিতে বর্তমানে বাংলাদেশ ৩২তম দেশ উল্লেখ করে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, দীর্ঘ ১০ বছরের চেষ্টায় আমরা অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে ১৭টি বড় বড় দেশকে পেছনে ফেলে একটি অবস্থানে এসেছি। । ২০৩০ সাল নাগাদ আমরা হবো ২৪তম অর্থনীতির দেশ। এ বছর আমরা বাজেট দিয়েছি ৫ লাখ কোটি টাকার বেশি, ২০৩৪ সালের আগেই বাংলাদেশের বার্ষিক বাজেট হবে এক ট্রিলিয়ন ডলার।

বৃহস্পতিবার (২৫ জুলাই) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আর্ন্তজাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক আয়োজিত দু দিনব্যাপী গুড প্রজেক্ট ইমপ্লিমেন্ট ফোরাম আয়োজিত সেমিনারের সমাপনি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ট্রিলিয়ন ডলারের বাজেট এটি আমাদের একটি স্বপ্ন, আর এ স্বপ্নটি আমরা বাস্তবায়ন করবো ইনশাআল্লাহ। একই সঙ্গে বাংলাদেশ নানা ক্ষেত্রে সফলতা পাচ্ছে। আমাদের প্রানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ় নেতৃত্বে আমাদের অগ্রগতি সাধিত হচ্ছে, সারা বিশ্ব আজ প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করছে। আমাদের রয়েছে জাতির জনকের দেখানো স্বপ্ন ও পথ। তার দেখানে পথেই দেশ এগিয়ে চলেছে, তিনি শুরু করেছিলেন ১ম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা সে পথেই আমরা বাস্তবায়ন করে চলেছি। বর্তমানে সপ্তম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ় নেতৃত্বেই আমরা জাতির জনকের স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়ন করব।

তিনি বলেন, আমরা ইতিমধ্যেই মধ্য আয়ের দেশ হয়েছি এবং এখন ভারত, ব্রাজিল, চীন, রাশিয়া, মালয়েশিয়া এবং ফিলিপাইনের মতো আমাদেরকেও উন্নয়নশীল দেশ হতে হবে।

মোস্তফা কামাল বলেন, এখন শহর এবং গ্রামে সকল ক্ষেত্রে প্রবৃদ্ধি বাড়ছে। সরকার চাচ্ছে, শহর ও নগরবাসী যে সকল সুযোগ সুবিধা ভোগ করছে, গ্রামবাসীরাও যেন সেই সুবিধা ভোগ করতে পারে। দু দিনব্যাপী এই সেমিনার সরকারকে এগিয়ে যাবার পথ দেখাবে, সরকার নতুন ধারনা পাবে এবং সরকার এগিয়ে যেতে পারবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

অর্থমন্ত্রী তার ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হবার সাম্প্রতিক ঘটনার উল্লেখ করে বলেন, তিনি অসুস্থ থাকায় গত বাজেট বক্তব্য পুরোটা দিতে পারেননি। তিনি মহান আল্লাহ কাছে দোয়া করে বলেন, কেউ যেন আর ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত না হয়।

অর্থমন্ত্রী অভিজ্ঞতা সঞ্চয়ে ভিয়েতনাম, ভারত এবং সিঙ্গাপুর সফর করতে যাবেন, এডিবি অ্যাওয়ার্ডেড প্রকল্পের এমন দু’জন শীর্ষ কর্মকর্তার নাম অনুষ্ঠানে ঘোষণা করেন।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নিযুক্ত এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) আবাসিক প্রতিনিধি মনমোহন প্রকাশ বলেন, প্রবৃদ্ধি অর্জনের দিক থেকে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের জন্য মডেল। এ ছাড়া অর্থনীতির অনেক ক্ষেত্রেই চালকের আসনে রয়েছে দেশটি। এমনকি এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলে দ্রæত প্রবৃদ্ধি অর্জনের দেশ হচ্ছে বাংলাদেশ। বর্তমানে বিশ্ব অর্থনীতিতে প্রবৃদ্ধি অর্জন অনেক চ্যালেঞ্জিং। এর পরও বিগত অর্থবছরে বাংলাদেশ ৮ শতাংশের ওপরে প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ এখন গোটা বিশ্বের জন্য মডেল।

অনুষ্ঠানে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সচিব মনোয়ার আহমেদ, ইআরডির অতিরিক্ত সচিব ফরিদা নাসরিন উপস্থিত ছিলেন।

দেশে বিভিন্ন ধরনের ৫৩টি উন্নয়ন প্রকল্প চলমান। এসব উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন ৫৩ জন প্রকল্প পরিচালক (পিডি)। প্রকল্প বাস্তবায়নের গতি অনেকটাই নির্ভর করে তাদের দক্ষতা ও স্বচ্ছতার ওপর। আর এ কাজে যেসব পিডি ভালো দক্ষতা দেখাচ্ছেন, সম্মেলনে তাদের পুরস্কৃত করে এডিবি।