প্রধান মেনু

৪৫০ হেক্টর জমির লিচু ১০০ কোটি টাকায় বিক্রির সম্ভাবনা নির্ধারিত সময়ের আগেই জমজমাট লিচুর মোকাম

মো. আখলাকুজ্জামান, গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি.
লিচুর রাজ্য খ্যাত নাটোরের গুরুদাসপুরে এবার ৪৫০ হেক্টর জমিতে লিচুর বাম্পার ফলন হয়েছে। উপজেলার বেড়গঙ্গারামপুর বটতলার বৃহৎ লিচুর মোকাম ২১মে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধনের সময় নির্ধারণ করা হলেও ১৫মে শুক্রবার থেকেই জমে উঠেছে লিচুর বেচাকেনা। ন্যায্যমূল্য পেলে ১০০ কোটি টাকার লিচু বিক্রি হবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।
শনিবার দুপুরে সরেজমিন গেলে লিচু ব্যবসায়ী আশরাফ, মাহাবুর, হিটলারসহ অনেকে বলেন, এখনও সব লিচু পরিপক্ক হয়নি। তবে মোজাফফর জাতের লিচু পাকতে শুরু করেছে। সেই সাথে লিচু বেচাকেনায় জমজমাট হয়ে উঠেছে মোকামের আড়ৎগুলো। প্রতি হাজার লিচু দেড় হাজার টাকা থেকে ২ হাজার টাকা মূল্যদরে বিক্রি হচ্ছে।
বেড়গঙ্গারামপুরের লিচু আড়ৎদার মালিক সমিতির সভাপতি সাখাওয়াত মোল্লা ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম বলেন, এই মোকামে ২০টি লিচুর আড়ৎ রয়েছে। বসছে রসালো লিচুর বাজার। প্রশাসনিকভাবে বহিরাগত লিচু বেপারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করায় বেপারীরা মোকামে আসতে শুরু করেছেন। এখন থেকে প্রতিদিন ট্রাক বোঝাই লিচু যাবে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে।
জানা যায়, আশপাশের ছোটখাটো বাজার, মোল্লাবাজার, নাজিরপুর, কুমারখালী ব্রীজঘাট, বিন্যাবাড়ি ঝাউপাড়া, এলাকার লিচুও এই মোকামে আমদানি হচ্ছে। এমনকি পাশর্^বর্তী বড়াইগ্রাম ও সিংড়া উপজেলার লিচু এই আড়তের মাধ্যমেই বিক্রি হয়ে থাকে।
উল্লেখ্য, ১২ মে বেড়গঙ্গারামপুরের লিচুর মোকাম পরিদর্শন করেন নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা। এসময় তিনি স্থানীয় লিচু চাষী ও ব্যবসায়ীদের সাথে লিচুর নিরাপদ আহরণ, উৎপাদন ও বাজারজাতকরণের লক্ষ্যে মতবিনিময় সভায় ২১ মে লিচুর বাজার উদ্বোধনের ঘোষণা দেন। কিন্তু মোজাফফর জাতের আগাম লিচু পরিপক্ক হওয়ার কারণে শুক্রবার থেকেই গুরুদাসপুরে জমে উঠেছে লিচুর বেচাকেনা।#