Main Menu

আগামী বছর বাংলাদেশ থেকে হজ যাত্রীর কোটা বাড়ছে

ঢাকা: আগামী বছর বাংলাদেশ থেকে হজ যাত্রীর কোটা বৃদ্ধি করার ব্যপারে সৌদি কর্তৃপক্ষ সম্মতি জানিয়েছে। আজ বুধবার জাতীয় সংসদের মিডিয়া সেন্টারে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে বাংলাদেশ-সৌদি আরব সংসদীয় মৈত্রী গ্রুপের চেয়ারম্যান এবং ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি বজলুল হক হারুন এ তথ্য জানান। এ সময় কমিটির অন্যান্য সদস্যের মধ্যে মোঃ নূরুল ইসলাম সুজন এমপি, মোঃ নজরুল ইসলাম বাবু এমপি এবং সাবেক এমপি ও বায়রার সভাপতি বেনজির আহমেদ উপস্থিত ছিলেন। সভাপতি জানান, সৌদি আরবের মজলিশে শুরার প্রধান (স্পিকার)-এর আমন্ত্রণে তাঁর নেতৃত্বে ৬ সদস্যের একটি সংসদীয় প্রতিনিধি দল সৌদি আরব সফর করেন। ৫ থেকে ১৩ নভেম্বর পর্যন্ত এই গুরুত্বপূর্ণ সফরের সময় প্রতিনিধি দল সৌদি আরবের মজলিশে শূরার প্রধান (স্পিকার), শ্রম ও সমাজ উন্নয়ন মন্ত্রী, ধর্ম মন্ত্রী এবং নবনিযুক্ত ওআইসি-এর মহাসচিবসহ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গের সাথে দ্বি-পাক্ষিক বৈঠকে মিলিত হন। সৌদি আরবে অবস্থানকালে প্রতিনিধি দল সৌদি আরবের শ্রম ও সমাজ উন্নয়ন মন্ত্রীর সাথে শ্রম বাজার ও বাংলাদেশ থেকে নিয়োগকৃত গৃহকর্মীদের নিরাপত্তা নিয়ে আলোচনা করেন।
বজলুল হক হারুন জানান, বর্তমানে সৌদি আরবে অবস্থানরত শ্রমিকরা এবং গৃহ কর্মীরা বেশ ভাল আছেন এবং তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশ মিশনের মাধ্যমে সৌদি কর্তৃপক্ষ তাদের সম্পর্কে সার্বক্ষনিক খোঁজখবর রাখছেন। এছাড়াও সৌদি কর্তৃপক্ষ তাদের এজেন্সির মাধ্যমেও সকল শ্রমিক বিশেষ করে নারী শ্রমিকদের বিষয়ে সার্বক্ষনিক খোঁজ খবর রাখছেন। তিনি সৌদি আরবে নিয়োজিত গৃহকর্মীরা ভাষা সম্পর্কে অজ্ঞতা, সৌদি খাবার খাওয়ার প্রতি অনাগ্রহ এবং দেশের থাকার প্রতি অতি আগ্রহকে দেশে ফিরে আসার মূল কারণ হিসেবে চিহ্নিত করেন।
সৌদি ধর্ম মন্ত্রীর সাথে বৈঠকের বিবরণ দিয়ে সভাপতি বলেন, গত জুন মাসে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক সৌদি আরব সফরের পর সৌদি আরবের সাথে বাংলাদেশের সম্পর্ক অনন্য উচ্চতায় পৌঁছেছে এবং এরই ধারাবাহিকতায় মৈত্রী গ্রুপের সফল আলোচনার ফলে তিনি বাংলাদেশ ও সৌদি আরব সরকারের মধ্যকার বন্ধনকে বিশ্বাস ও ভ্রাতৃত্ত্বে¡র বন্ধন হিসেবে অখ্যায়িত করেন। তিনি “ই’’ হজ্জ ব্যবস্থাপনার ফলে সৌদি আরবে জনবল নিয়োগ ও হজ যাত্রার ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা নিশ্চিত হয়েছে বলে উল্লেখ করেন।
ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে কমিটির সদস্যরা বলেন, বাংলাদেশিরা নয়, মিয়ানমার থেকে আসা রোহিঙ্গারা বাংলাদেশি পাসপোর্ট ব্যবহার করে সৌদিতে গিয়ে নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে। তারা বলেন, আগামীতে যাতে শ্রমিকেরা সঠিক ট্রেনিং নিয়ে সেখানে যায়- এ ব্যাপারে সরকারকে কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার সুপারিশ করবে কমিটি।