বেড়ায় যুবলীগ নেতাকে হাতুরি ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করেছে সন্ত্রাসীরা

পাবনা : পাবনার বেড়া উপজেলায় জিয়াউর রহমান জিলাল (৪০) নামের যুবলীগ নেতাকে হাতুরী দিয়ে পিটিয়ে ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে সন্ত্রাসীরা। আহত জিলাল পুরান ভারেঙ্গা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারন সম্পাদক। তবে হামলাকারিরা বিএনপি নেতা কর্মী বলে অভিযোগ করছে আওয়ামীলীগ।
এলাকাবাসি ও পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, জিয়াউর রহমান বেড়া উপজেলার নগরবাড়ি ঘাটে সারের ব্যবসা করেন। শনিবার বিকালে সে মোটর সাইকেল করে প্রতাপপুর অবস্থিত বাড়ি থেকে নগরবাড়ি ঘাটে ব্যবসা প্রতিষ্ঠিানে যাচ্ছিল। সন্ধা ছয়টায় দিকে রঘুনাথপুর মোড়ে আসার পর স্থানীয় ইউপি সদস্য ও বিএনপি নেতা দুলাল কাজির ও সানু সরদারের নেতৃত্বে প্রায় ২৫জনের একটি দল তার মোটর সাইকেলের গতিরোধ করে। তারা মোটর সাইকেল থেকে জিলালকে নামিয়ে হাতুরি দিয়ে পেটান ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপায়। তার চিৎকারে এলাকাবাসি এগিয়ে আসলে এক পর্যায়ে হামলাকারিরা পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে এলাকাবাসি মমুর্ষ অবস্থায় তাকে দ্রুত উদ্ধার করে পাবনা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা প্রেরন করা হয়েছে। এ ঘটনায় জিলালের ভাই আক্তার হোসেন বাদি হয়ে দুলালসহ ২০ জনের বিরুদ্ধে আমিনপুর থানায় মামলা করেন। পুরান ভারেঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান ও আঃ লীগ সভাপতি এ এম রফিকুল্লাহ বলেন, হামলার সঙ্গে জরিতরা বিএনপি রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। আমরা এ হামলার বিচার চাই।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author