ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান পদ থেকে পিয়ার পদত্যাগ : পাবনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন সংগ্রহ

নিজস্ব প্রতিনিধি : ভুমিমন্ত্রী, পাবনা জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর মেয়ে মাহজেবিন শিরিন পিয়া ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন এবং গতকাল বুধবার পাবনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদের জন্য তিনি জেলা নির্বাচন অফিস থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। মঙ্গলবার বিকেলে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিব বরাবর লিখিত একপত্রে তিনি এই পদত্যাগ পত্র জমা দেন। পদত্যাগ পত্রের অনুলিপি পাবনার জেলা প্রশাসক, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক, ঈশ্বরদীর ইউএনও সহ বেশ কয়েকটি দফতরে পাঠানো হয়। পাবনা জেলা প্রশাসন এই পদত্যাগ পত্র পাওয়ার সত্যতা স্বীকার করেছেন।
এর আগে ভুমিমন্ত্রী ও পাবনা জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি শামসুর রহমান শরীফ ডিলু এমপির মেয়ে, ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান, জেলা আওয়ামীলীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা মাহজেবিন শিরিন পিয়া পাবনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী ঘোষনা করেন। এ সময় তিনি বলেন, যেহেতু নির্দলীয় নির্বাচন তাই দল সমর্থণ বা মনোনয়ন দিলেও তিনি প্রার্থী হবেনা না দিলেও প্রার্থী হবেন।
মাহজেবিন শিরিন পিয়া বলেন, আমি ছাত্র জীবন থেকে রাজনীতির সাথে জড়িত। আমার বাবা একজন প্রবীণ রাজনীতিবীদ। আমার স্বামী পৌর মেয়র। আমার পরিবার একটি ঐতিহ্যবাহী পরিবার। তার পরেও আমি কারো কৃপায় রাজনীতিতে উপরে উঠে আসিনি। আমি আমার যোগ্যতা বলে এতদুর এসেছি। আমি সবাইকে নিয়ে পাবনার সেবা করতে চাই। তিনি বলেন, আমি জীবনের শুরু থেকে সক্রিয় রাজনীতির সাথে জড়িত। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত আমি মানুষের কল্যানে কাজ করে যাচ্ছি। আমার বয়সও বর্তমানে ৪৫ বছর। অনার্সসহ মাস্টারস শেষ করেছি। এলএলবিও শেষ করেছি। আমি মনে করি আমি বর্তমানে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে একজন যোগ্য প্রার্থী।
পাবনা জেলার সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো: সাইফুল ইসলাম মাহজেবিন শিরিন পিয়ার মনোনয়নপত্র সংগ্রহের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, চেয়ারম্যান পদে শুধু তিনিই অন্যান্য পদে বেশ কয়েকটি মনোনয়নপত্র বিক্রি হয়েছে।
স্থানীয় সরকার বিভাগ, পাবনার উপ-পরিচালক মো: আখতার হোসেন আজাদ ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান পদ থেকে মাহজেবিন শিরিন পিয়ার পদত্যাগের চিঠি পাওয়ার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, পরবর্তি কার্যক্রমের জন্য উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে এই পদত্যাগ পত্র পাঠানো হয়েছে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author