পাবনায় পিতাকে হত্যা করে মেয়েকে উঠিয়ে নিল বখাটে

পাবনার বেড়া উপজেলায় মোয়াজ্জেম শেখ (৪৫) নামের এক রিকশাচালক পিতাকে কুপিয়ে হত্যা করে তার মেয়েকে উঠিয়ে নিয়ে গেছে এক বখাটে। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হাসনা বেগম (৩৬) নামের এক নারীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবার (০৩ অক্টোবর) সকাল নয়টার দিকে উপজেলার দাসপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, জামাই প্রবাসে থাকায় মোয়াজ্জেম শেখের বড় মেয়ে তার বাড়িতে থাকেন। পাশের বাড়িতে থাকেন দুসম্পর্কের আত্মীয় আছান শেখের বখাটে পুত্র সবুজ হোসেন (২৫)। স্বামী বিদেশে থাকায় মোয়াজ্জেম শেখের মেয়ের একাকিত্বের সুযোগ নিয়ে বিভিন্ন সময় প্রেমের প্রস্তাব দিতো সবুজ। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে বলে জানান স্থানীয়রা।

এ নিয়ে দুই পরিবারের সাথে মাঝে মধ্যেই ঝগড়া বিবাদ হতো। ইতিপূর্বে গ্রাম্য শালিসও হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে সবুজ ওই প্রবাসীর স্ত্রীকে হাত ধরে নিয়ে যেতে চাইলে বাবা মোয়াজ্জেম শেখ বাধা দেন। এ সময় উভয়ের মধ্যে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে সবুজ ছুরি দিয়ে মোয়াজ্জেম শেখের বুকে আঘাত করলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। এ সময় হাসনা বেগম নামের এক আত্মীয় তাকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে তাকেও ছুরিকাঘাত করেন বখাটে সবুজ। ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান পাবনার পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির।

বেড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাফফর হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আহত হাসনা বেগমকে উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির জানান, নিহত মোয়াজ্জেম শেখের মেয়েকে উদ্ধারে পুলিশ কাজ করছে। একইসাথে পুলিশ ঘাতক সবুজকে ধরতে বিশেষ অভিযান চালাচ্ছে। আশা করছি খুব শিগগির নারীকে উদ্ধার ও ঘাতককে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হবে পুলিশ।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author