জাতীয়করণের দাবিতে মানববন্ধন ও সাংবাদিক সম্মেলন লালপুর শ্রী সুন্দরী পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়

লালপুর (নাটোর) প্রতিনিধি ঃ
নাটোরের লালপুর উপজেলার দেড়’শ বছরের ঐতিহ্যবাহী লালপুর শ্রী সুন্দরী পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয় দ্রুত জাতীয়করণের দাবিতে মানব বন্ধন, সড়ক অবোরধ ও সাংবাদিক সম্মেলন করেছে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মচারী, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য এবং ছাত্র ছাত্রীবৃন্দ।
সোমবার (৩০ অক্টোবর) সকালে বিদ্যালয়ের পাশে লালপুর-নাটোর সড়কে মানব বন্ধন ও সড়ক অবোরধ শেষে বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম। লিখিত বক্তব্যে তিনি জানান, বর্তমান সরকারের প্রতিটি উপজেলায় একটি করে মাধ্যমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণের আওতায় বিদ্যালয়টি সরকারের সকল শর্ত পুরন করে তথ্য প্রেরণ করা হয়েছে। কিন্তু উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা উপজেলার অপর চারটি বিদ্যালয়ের অসত্য তথ্য প্রেরন করায় জাতীয়করণটি ঝুলে পড়ে। সাংবাদিক সম্মেলনে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এস.এম আসাদুজ্জামান ৫টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অসত্য তথ্য প্রেরণ করেন। অত্র প্রতিষ্ঠানটি থানা সদর হতে ০ কি.মি. ও উপজেলা পরিষদ হতে মাত্র ৩ কি.মি দূরত্বে অবস্থিত অথচ গত ২৮/৯/২০১৬ ইং তারিখে উপজেলা/থানা সদরে বিদ্যালয়ের দুরত্ব সহ অন্যান্য তথ্যাবলী অসত্য তথ্য প্রদান করেছেন। অন্যদিকে তিনি উপজেলা সদর হতে করিমপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের দুরত্ব ১২কিলোমিটারের জায়গায় ৫ কিলোমিটার দেখিয়েছেন ও ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা বাড়িয়ে তথ্য প্রেরণ করেন। যা অনভিপ্রেত, উদ্দেশ্যমূলক এবং অগ্রহনযোগ্য। জাতীয়করণে সমস্ত উপকরণ ও শর্ত পূরণে প্রতিষ্ঠানটি সক্ষম হওয়া সত্ত্বেও নাটোর জেলার অন্যান্য থানা সমুহের হাইস্কুল জাতীয়করণের ঘোষনা হলেও অদ্যাবধি এ প্রাচীনতম লালপুর উপজেলায় জাতীয়করণের নাম ঘোষনায় ঝুলন্ত রয়েছে। বিদ্যালয়টি ১৮৬৭ সালে প্রতিষ্ঠিত অর্থাৎ দেড়’শতাধিক বছরের পুরাতন ও ঐতিহ্যবাহী অত্র প্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রী সংখ্যা প্রায় ১৪’শ। বিগত বছর গুলিতে জেএসসি ও এসএসসিতে শতভাগ পাস সহ সবচেয়ে বেশি জিপিএ-৫ পেয়ে উপজেলায় কয়েকবার সেরা প্রতিষ্ঠানের স্বীকৃতি পেয়েছে। গ্রীষ্মকালীন ও শীতকালীন খেলাধুলায় বিশেষ করে ফুটবল ও এ্যাথলেটিকসে বহু বছর ধরে বিভাগীয়, আঞ্চলিক এবং জাতীয় পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন সহ রানার্স আপ হয়েছে। এছাড়া জাতীয়করণের লক্ষে স্থানীয় নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. আবুল কালাম অত্র প্রতিষ্ঠানটিকে ১৮/০৪/২০১৫ এবং ২/৮/২০১৫ ইং তারিখে দুটি ডি.ও লেটার প্রদান করেন এবং অত্র প্রতিষ্ঠানে “মডেল ভবন” উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সমাবেশে বিদ্যালয়টিকে জাতীয়করণ করা হবে বলে আশ্বাস প্রদান করেন। প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান ও স্থানীয় সাংসদের আন্তরিকতা ও সুদৃষ্টি সত্ত্বেও এই প্রতিষ্ঠান সরকারীকরনে কেন ঝুলন্ত রয়েছে তা উপজেলার হিতৈষী ও সুধী জনগনের মনে প্রশ্ন ও হতাশা বিরাজ করছে। তাই প্রতিষ্ঠানের সকল শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অত্র এলাকার সর্বস্তরের জনতার দাবি দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রতিষ্ঠানটিকে জাতীয়করণ ঘোষনা করা হোক। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি তায়েজ উদ্দিন, সদস্য ও নাটোর জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান মতিউর রহমান মতি, সদস্য আঃ ওয়াদুদ, গনেশ চন্দ্র দাস, স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, বিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী-কর্মচারী ও সাংবাদিকবৃন্দ।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author