ঈশ্বরদীতে আগামী মাসে চালু হচ্ছে রেলওয়ে বন্দর

ঈশ্বরদী ॥ ঈশ্বরদী এলাকার উন্নয়ন ক্রমান্বয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে। যোগাযোগ ব্যবস্থার কারণে ঈশ্বরদীতে রেল বন্দর চালুর সিদ্ধান্ত হয়েছে। দেশের একমাত্র সর্ববৃহৎ রুপপুর পরমাণু প্রকল্পের পর এবার রেলওয়ে বন্দর চালুর খবর ঈশ্বরদীবাসীদের মুগ্ধ করেছে। জরুরি ভিত্তিতে আগামি মাসের মধ্যে এ বন্দরের কার্যক্রম শুরু হবে। মংলাবন্দর ও ভারত থেকে প্রতিদিন ৪’শ থেকে ৫’শ মাল বোঝাই কন্টেইনার আনা ঈশ্বরদী রেলবন্দরে। এ কারণে বাংলাদেশ রেলওয়ের সাথে সম্পৃক্ত বিভিন্ন পর্যায়ে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে।

অসংখ্য জনবলের কাজ করার সুযোগ সৃষ্টি হবে। ঈশ্বরদী এলাকার অর্থনৈতিক পরিবেশেরও উন্নয়ন হবে। বৃহস্পতিবার সকালে বাংলাদেশ ও ভারতীয় রেলওয়ের উচ্চ পর্যায়ের দুটি প্রতিনিধি দল ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংসন ইয়ার্ডস্থ বন্দরের নির্দিষ্ট স্থান পরিত্যক্ত মালগুদামসেড এলাকা পরিদর্শন করেন। বাংলাদেশ রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অপারেশন হাবিবুর রহমানের দেওয়া তথ্যসূত্রে এসব জানাগেছে।

সূত্রমতে, সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ রেল ও ভারতীয় রেলওয়ের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্য এবং পাথর আমদানীসহ নানা কর্মকান্ড বৃদ্ধি হয়েছে। অন্যান্য দেশ থেকেও মালামাল বোঝাই কন্টেইনার আমদানী করা হবে। এসব কর্মকান্ড আরও সমৃদ্ধির জন্য দু’দেশের রেলওয়ে কর্মকর্তারা তৎপরতা বৃদ্ধি করে পরিত্যক্ত মালগুদামসেড এলাকা পরিদর্শন করেন। এরই অংশ হিসেবে ঈশ্বরদীতে রেলওয়ে বন্দর আগামি মাসের মধ্যে চালু করা হবে।

এ জন্যই মূলতঃ বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ও ভারতীয় রেলওয়ের উচ্চ পর্যায়ের পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট দু’টি প্রতিনিধি দল ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংসন ইয়ার্ডস্থ বন্দরের সম্ভাব্য বন্দরের নির্দিষ্ট স্থান পরিদর্শন করেন। পরিদর্শণকালে বাংলাদেশ রেলওয়ের দু’সদস্য বিশিষ্ট প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন, রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অপারেশন হাবিবুর রহমান। প্রতিনিধি দলের অন্যান্য সদস্যদের মধ্যে পাকশী বিভাগীয় পরিবহণ কর্মকর্তা শওকত জামিল মৌসী ও জুনিয়র ইনস্পেক্টর ইসলাম সাথে ছিলেন। তিন সদস্য বিশিষ্ট ভারতীয় রেলওয়ের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন, কনকরের চেয়ারম্যান ভি.কালিয়ানা রামা। অন্য সদস্যদের মধ্যে কনকরের সিনিয়র জিএম.সৈয়দ আব্দুল রহমান, ঢাকাস্থ ভারতীয় হাই কমিশনার ও ভারতীয় রেলওয়ের উপদেষ্টা ডিবানজন রায়।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author