Main Menu

পাবনা’য় পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অর্ধদিবস কর্মবিরতি

শফিক আল কামাল ॥ কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসাবে সরকারি কোষাগার হতে বেতন ভাতা ও পেনশন’র দাবিতে অর্ধ দিবস কর্ম বিরতি পালন করেছে পাবনায় কর্মরত পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারী এ্যাসোসিয়েশন। সোমবার (০৬’ নভেম্বর) সকাল ৯টা থেকে ০১টা পর্যন্ত অর্ধদিবস এ কর্ম বিরতি পালন করে।

এ্যাসোসিয়েশনের পাবনা’র সভাপতি মো. নুরুল আলম বিশ্বাস’র সভাপতিত্বে কর্মবিরতিতে কেন্দ্রীয় পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারী এ্যাসোসিয়েশনের সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক মো.মতিউর রহমান বলেন, জাতির জনক বঙ্গ বন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নগরায়নের গুরুত্ব দিয়ে ১৯৭২ সালে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সংবিধানের ৫৯(১) অনুচ্ছেদে প্রশাসনিক একাংশ অনুযায়ী নির্বাহী বিভাগের একটি অংশ এবং ৫৯(২) অনুচ্ছেদে পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারিদের সরকারি কর্মচারীর মর্যাদা প্রদান করেছেন। স্থানীয় সরকার পৌরসভা আইন ২০০৯এর ১২৬ ধারা অনুযায়ী পৌরসভার মেয়র, কাউন্সিলর, কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং পৌরসভার কাজ করার জন্য যথাযথ ক্ষমতাপ্রাপ্ত বা দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যাক্তি দন্ডবিধির ধারা ২১ অনুযায়ী জনসেবক হিসাবে গৃহিত।

১৯৯৬ সালে স্থানীয় সরকার, পল্লি উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রাণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী এবং পরবর্তীতে মহামান্য রাষ্ট্রপতি জাতির জনকের একান্ত সহচর বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রয়াত জিল্লুর রহমান বাংলাদেশ সিটি ও পৌর কর্মচারী ফেডারেশনের সমাবেশে রাজস্ব তহবিল থেকে পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন ভাতা ও পেনশন প্রদানের অঙ্গিকার করেছিলেন। কিন্তু আজ পর্যন্ত সে অঙ্গিকার বাস্তবায়িত হয়নি। বর্তমানে পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নি¤œ আয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে অনেক কষ্টে দিন অতিবাহিত করছেন।

অন্যান্যদের মাঝে আরও বক্তব্য রাখেন এ্যাসোসিয়েশনের জেলা কমিটির উপদেষ্টা খন্দকার জিয়াউল ইসলাম, মো. শহিদুল ইসলাম, সার্ভিস এ্যাসোসিয়েশনের সদস্য মোছা. নাছিমা বেগম, কাজী সাইফুর রহমান, মাহমুদা রব, মো. আব্দুর রহিম, মোছা. শামীমা মাহতাব, মো. জালাল উদ্দিন, মো. আকরাম আলী ও জেলা কমিটির সদস্য মো. সাজ্জাদুল ইসলাম প্রমুখ। বক্তারা সরকারি কোষাগার থেকে বেতন ভাতা ও পেনশন প্রাপ্তির লক্ষ্যে সরকারের সু-দৃষ্টি কামনা করেন। এ কর্মবিরতিতে পৌরসভার সকল পর্যয়ের কর্মকর্তা কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। কর্মবিরতি সঞ্চালনা করেন এ্যাসোসিয়েশনের জেলা কমিটির দপ্তর সম্পাদক মো. আসাদ উজ্জামান।