রুপপুর পারমাণবিক বিদ্যুত কেন্দ্রের  উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সর্বশেষ অবস্থা জানতে প্রধানমন্ত্রীর এপিএস সাইফুজ্জামান শেখরের প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন

স্টাফ রিপোর্টার,ঈশ্বরদী ॥

আগামিকাল বৃহস্পতিবার (৩০ নবেম্বর) সকাল সাড়ে দশটায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হেলিকপ্টার যোগে ঈশ্বরদীর ঐতিহাসিক রুপপুর পারমাণবিক বিদ্যুত কেন্দ্রে আসবেন। তিনি বিশ্বের ৩২তম রুপপুর পারমাণবিক বিদ্যুত কেন্দ্রের মূল পর্বের প্রথম কংক্রিট ঢালাই কাজের উদ্বোধন করবেন।নিউক্লিয়ার পাওয়ার প্ল্যান্ট কোম্পানী বাংলাদেশ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। পরিপূর্ণ নিরাপত্তা ব্যবস্থায় সুসজ্জিত পরিবেশে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দিবেন। এর আগে রাশিয়ার আন্তর্জাতিক প্রকল্প এএসই গ্রুপের প্রকৌশল বিভাগ রোসাটম স্টেট এটোমিক এনার্জি করপোরেশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট মি. আলেক জান্ডার খাজিন,রোসাটমের মহাপরিচালক আলেকজি লিখাচেভ বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দিবেন। স্বাগত বক্তব্য দিবেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রনালয়ের সচিব আনোয়ার হোসেন। অনুষ্ঠানে সভাপতি হিসেবে বক্তব্য দিবেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস উসমান। এ সময় রাশিয়া ও ভারতসহ ১০ দেশের অতিথিদের উপস্থিত থাকার কথার রয়েছে। বক্তব্য শেষে প্রধান মন্ত্রী সুইচ টিপে বিশ্বের ৩২তম রুপপুর পারমাণবিক বিদ্যুত কেন্দ্রের মূল পর্বের প্রথম কংক্রিট ঢালাই কাজের শুভ উদ্বোধন করবেন।এর আগে প্রধান মন্ত্রী হেলিকপ্টার থেকে নেমে নির্মানাধীন বিদ্যুত কেন্দ্রের পারমাণবিক চুল্লির মূলস্থান কংক্রিট ঢালাই কাজের সাইট পরিদর্শন করবেন। এদিকে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানকে সফল করতে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস উসমান প্রকল্পের পিডি শওকত আকবরসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তা এবং সকল প্রকার প্রশাসনের দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের সাথে নিয়ে প্রকল্প এলাকায় অবস্থান ও মনিটরিং করছেন।

এদিকে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সর্বশেষ অবস্থা জানতে বুধবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর এপিএস সাইফুজ্জামান শেখর উদ্বোধনী মঞ্চ ,হ্যালিপ্যাড,নতুন রুপপুর স্কুল ও পাকশী রেলওয়ে ফুটবল মাঠ পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস উসমান, প্রকল্পের পিডি শওকত আকবরসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তা, পাবনা-৫ আসনের এমপি খন্দকার গোলাম ফারুক প্রিন্স, নাটোর -১ আসনের এমপি এ্যাড,আবুল কালাম আজাদ, ঈশ্বরদী,পাকশী ও লক্ষিকুন্ডা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের সাথে কথা বলে বিভিন্ন বিষয়ে জানার চেষ্টা করেন। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস উসমান ও পাবনা জেলা প্রশাসক রেখা রানী বালো জানান, উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের জাবতীয় কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে।
ওদিকে সততায় বিশ্বের তৃতীয়স্থান অধিকারী নেতা এবং বিশ্বের ঐতিহাসিক ভাষনদাতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর গর্বিত কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগমনকে কেন্দ্র করে ঈশ্বরদী ও লালপুরের সর্বত্র গত গত ১৫ দিন থেকে উৎসবের আমেজ চলছে। ঢাকায় অবস্থানকারী ঈশ্বরদী এলাকার আইনজীবি নেতা এ্যাড. রবিউল আলম বুদু ও সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগনেতা ব্যারিষ্টার সৈয়দ আলী জিরুসহ অন্যান্য নেতারা গত ২৪ নবেম্বর থেকে এলাকায় অবস্থান করে ঈশ্বরদী,আটঘরিয়া ও পাবনা এলাকায় গণসংযোগসহ নানাভাবে কাজ করে যাচ্ছেন অনুষ্ঠানকে সফল করার জন্য। লক্ষিকুন্ডা ও পাকশী ইউপি চেয়ারম্যানদ্বয়সহ দলীয় নেতাকর্মীরাও অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন। পাকশী ও লক্ষিকুন্ডা ইউনিয়ন এলাকার বিশাল জমিতে পরমাণু প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়ন হওয়ায় আনিসুর রহমান শরীফ ও এনামুল হক বিশ্বাস বলেন,উদ্বোধনী অনুষ্ঠান প্রকল্পের মধ্যে আয়োজন করায় অপেক্ষামান সাধারণ মানুষের চাহিদা পুরণের জন্য পাকশী রেলওয়ে আমতলা ফুটবল মাঠে ও নতুন রুপপুর স্কুল মাঠে তিনটি বিশালাকৃতির প্রজেক্টর এবং সাড়ে চার হাজার চেয়ার দিয়ে পৃথক দু’টি প্যান্ডেল সাজানো হয়েছে। সেখান থেকে তারা প্রধান মন্ত্রীর ভাষন শুনবেন ও দেখবেন। এলাকায় মাইকিং সহ নানাভাবে প্রধানমন্ত্রীর আগমনী বার্তা পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। সাধারণ জনগণ প্রজেক্টরের মাধ্যমে প্রধান মন্ত্রীকে দেখে ও ভাষন শুনে ডিজিটাল সরকারের ভাবমুর্তি বৃদ্ধি করবেন বলেও তারা জানান।
উল্লেখ্য,রুপপুর পরমাণু বিদ্যুত কেন্দ্রে ২৪০০ মেগাওয়াট বিদ্যুত উৎপাদন করা হবে। এর মধ্যে ২০২২ সালের ডিসেম্বরে প্রথম ইউনিট ১২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুত উৎপাদনে আসবে।দ্বিতীয় ইউনিট উৎপাদনে আসবে পরের বছর ২০২৩ সালে। ইতিমধ্যে এ প্রকল্পের আবাসনসহ সকল প্রকার অবকাঠামো নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। দেশের সর্ববৃহৎ ঈশ্বরদীর রুপপুর পরমাণু প্রকল্পের জন্য রাশিয়ার কাছ থেকে সরকার ঋণ নিয়েছে ৯১ হাজার ৪’শ কোটি টাকা।শুধু সুদ বাবদ রাশিয়াকে ফেরত দিতে হবে ৬৯ হাজার ২৩২ কোটি টাকা।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author