Main Menu

ভাঙ্গুড়ায় ইতিহাস সেরা মহান বিজয় দিবস উদযাপিত

মাসুদ রানা, ভাঙ্গুড়া, পাবনা বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনা ও বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে ভাঙ্গুড়ায় যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়েছে মহান বিজয় দিবস। মহান মুক্তিযুদ্ধে জীবন উৎসর্গকারী বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে সকালে ভাঙ্গুড়া কেন্দ্রীয় স্মৃতিসৌধ ও শহীদ মিনারে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোর পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্যে দিয়ে শুরু হয় দিনের কর্মসূচি। শুরুতে কেন্দ্রীয় স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে শহীদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানান স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মকবুল হোসেন। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুজজামানের নেতৃত্বে উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি লোকমান হোসেনের নেতৃত্বে উপজেলা আওয়ামী লীগ, পৌর মেয়র গোলাম হাসনাইনের নেতৃত্বে পৌরসভা ও পৗর আওয়ামী লীগ পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। একই সময়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নূর মুজাহিদ স্বপন, ভাইচ চেয়ারম্যান জেড আই হিরোক সহ বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপজেলা পরিষদ শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শহীদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর পর্যায়ক্রমে মুক্তিযোদ্ধাগণ, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং সাধারণ জনগণ স্মৃতিসৌধ ও শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। সকাল থেকেই ভাঙ্গুড়া কেন্দ্রীয় স্মৃতিসৌধ ও শহীদ মিনারে সাধারণ মানুষের ঢল নামে। ব্যানার ফেস্টুন হাতে হাজার হাজার মানুষ লাইন ধরে দাঁড়িয়ে থাকে স্মৃতিসৌধ ও শহীদ মিনার চত্বরে। সকাল সাড়ে ৯ টা থেকে দুপুর পর্যন্ত মহান বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন পরিচালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীদের এক মনোজ্ঞ কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠান উপজেলা পরিষদ মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুজজামানের সভাপতিত্বে স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মকবুল হোসেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক নূর মুজাহিদ স্বপন, পৌর মেয়র গোলাম হাসনাইন রাসেল, ভাইচ চেয়ারম্যান জেড আই হিরোক এই কুচকাওয়াজে সালাম গ্রহণ করেন। পরে মাঠের দক্ষিণে নির্মিত ১০০ ফুট আয়তনের বিশাল মঞ্চে বসে প্রধান অতিথি সহ অন্যান্য অতিথিরা কুচকাওয়াজ উপভোগ করেন। এসময় উপজেলার সকল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, সরকারি কর্মকর্তা ও ইউপি সদস্যরা সহ বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা প্রায় ১০ হাজার দর্শক এ মনোজ্ঞ কুচকাওয়াজ উপভোগ করেন। কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠান শেষে সংসদ সদস্য সেখানে অংশগ্রহনকারীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন। পৌর মেয়রের উদ্যোগে অনুষ্ঠানটি স্থানীয় টিভি চ্যানেলে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। এর আগে সকালে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে একটি বিজয় র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি হাজী জামাল উদ্দিন অনার্স কলেজে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে ইউএনও আরিফুজজামানের সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মকবুল হোসেন ও আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন। এছাড়া উপজেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আলাদা আলাদাভাবে চিত্রাংকন ও রচনা প্রতিযোগিতাসহ বিজয় দিবসের নানা কর্মসূচি পালন করা হয়। বিকালে পৌর মেয়র গোলাম হাসনাইন রাসেলের সার্বিক সহযোগিতায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহনে উপজেলা পরিষদ মাঠে ক্রীড়া অনুষ্ঠান এবং সন্ধ্যায় মুক্তিযুদ্ধের ওপর সংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। ইতিপূর্বে বিজয় দিবসের অনুষ্ঠান ঢিলেঢালাভাবে পালন হওয়ায় এবারের ব্যাপকতা দেখে উপজেলাবাসী এ অনুষ্ঠানকে কয়েক যুগের মধ্যে সর্ব বৃহৎ আয়োজন বলে মন্তব্য করেন।



Comments are Closed