Main Menu

দেশে ফোরজি’র যাত্রা শুরু অপারেটরদের লাইসেন্স হস্তান্তর

বহুল প্রতীক্ষিত চতুর্থ প্রজন্মের নেটওয়ার্ক তথা ফোরজি সেবা গতকাল সোমবার থেকে চালু হয়েছে। এদিন সন্ধ্যায় রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে এই সার্ভিস চালুর অনুমোদন পাওয়া চার অপারেটর গ্রামীণফোন, রবি, বাংলালিংক ও টেলিটকের শীর্ষ নির্বাহীদের হাতে লাইসেন্স তুলে দেওয়া হয়। লাইসেন্স পাওয়ার কয়েক মিনিটের মধ্যেই তারা ফোরজি চালু করে দেয়। তবে পুরোপুরি সেবা পেতে আরো কয়েকদিন সময় লাগবে বলে সংশ্লিষ্টদের সূত্রে জানা গেছে।
জানা গেছে, গতকাল টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসির চেয়ার?ম্যান শাহজাহান মাহমুদ ঢাকা ক্লাবে এক অনুষ্ঠানে এই অপারেটরের শীর্ষ কর্মকর্তাদের হাতে ফোর জি লাইসেন্স হস্তান্তর করেন। এর মধ্যে গ্রামীণফোনের পক্ষে এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মাইকেল ফোলি, রবি’র পক্ষে রবি আজিয়াটা লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাহতাব উদ্দিন আহমেদ, বাংলালিংকের পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির  সিইও এরিক অস এবং টেলিটকের পক্ষে এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী গোলাম কুদ্দুস ফোর লাইসেন্স গ্রহণ করেন।
ডাক টেলিযোগাযোগ ও আইসিটি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার বলেন, মোবাইল অপারেটরদের কাছে জনগণ যে টাকা দিচ্ছে সে অনুপাতে সেবা পাচ্ছে না। সরকার সেবার ক্ষেত্রে কোন ছাড় দিবে না। তিনি আরো বলেন, সিম রি-প্লেসমেন্টর জন্য একাধিক অপারেটর ১১০ টাকা করে নিচ্ছে বলে বিটিআরসির সংশ্লিষ্ট বিভাগ আমাকে জানিয়েছে। এটা অবৈধ ভাবে নেয়া হচ্ছে। তিনি এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলেন। উল্লেখ্য,  সিম রিপ্লেসমেন্ট করতে  গ্রামীণ ফোন আর রবি টাকা নিচ্ছে।
জানা গেছে, বাংলালিংক আজ মঙ্গলবার ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা ও সিলেটের বিশেষ কিছু এলাকায় এ সেবা চালু করবে। টেলিটক যেকোনো সময় ফোরজি সেবা চালু করবে বলে জানা গেছে। তবে একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানাচ্ছে, ফোরজি সেবা চালুর জন্য এখনও পুরোপুরি প্রস্তুত নয় রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠানটি। তাদের অবকাঠামো তৈরির কাজ এখনও শেষ হয়নি।
এদিকে, ফোরজি চালুর আগে গত কয়েকদিন ধরে মোবাইল ফোনের নেটওয়ার্কে খুবই সমস্যা হচ্ছে বলে অনেকে অভিযোগ করেছেন। নেটওয়ার্ক না থাকা, ঘন ঘন কলড্রপ হওয়া, কথা শোনা না যাওয়ার মতো ঘটনা ঘটছে বেশি। একটি মোবাইল ফোন অপারেটরের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, এক প্রযুক্তি থেকে অন্য প্রযুক্তিতে প্রবেশের সময় এ ধরনের ঝামেলা হওয়াটা অস্বাভাবিক নয়। তবে তা দ্রুত সমাধান হয়ে যাবে। ফোরজি চালু হলে ৪০ এমবিপিএস (মেগা বিট পার সেকেন্ড)  পর্যন্ত গতিতে তথ্য আদান-প্রদান করা যাবে।