প্রধান মেনু

স্বল্প আয়ের মাঝে টাকা জমাবেন যেভাবে

বেতন পাওয়ার পর প্রথম কয়েকটা দিন ঠিকঠাক চলে, পারিবারিক খরচ, ব্যক্তিগত খরচ, কেনাকাটা সহ নানা খরচে মাস শেষে পকেটে টান পড়ে অনেকেরই। যদিও খরচ সামলে সঞ্চয়ের দিকে পাল্লা ভারী করতে সাবাই চায়। তবে আধুনিক জীবনযাত্রা ও বাজারদরের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে টাকা জমানো আর হয়েই ওঠে না। মাসের মাঝে এসেই কাটছাঁট করতে হয় খরচ।
তবে কিছু কৌশল ও হিসাব মাথায় রাখলে এই সমস্যা কাটিয়ে তোলা সম্ভব।
জেনে নিন সে সব উপায় আর বাজেট তৈরি করুন সে ভাবেই-
আজকাল বেশ কিছু অ্যাপ পাওয়া যায়, যেখানে সারা মাসের আয়-ব্যয়ের হিসাব করে নেওয়া খুবই সহজ। এমনকি, আগে থেকে দিয়ে রাখা হিসাব থেকে কোনও কারণে বেশি খরচ হলে সেই খবর অ্যাপই জানান দেবে আপনাকে। তেমন একটা অ্যাপ নামিয়ে নিন প্লে স্টোর থেকে।

মাসের শুরুতেই একটা হিসাবের খাতা করুন। সেখানে লিখে রাখুন মাসের শুরুতেই কোথায় কত খরচ, তার হিসাব। সেই হিসাব বদলালেও তাও লিখুন খাতায়। প্রতিদিনই আপডেট করুন সেই তালিকা। তাতে আপনার আয়-ব্যয়ের সঙ্গতি রক্ষা সহজ হবে।

অনলাইন শপিংয়ের নেশা আছে? সে অভ্যাস বদলান দ্রুত। মনোবিজ্ঞানীদের মতে, অনলাইন শপিং এক ধরনের নেশা। যার প্রকোপে পড়ে ঘন ঘন ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারের প্রবণতাও বাড়ছে। ক্রেডিট কার্ডের ধারের বোঝা কিন্তু খরচের বোঝা বাড়ায়।

কেউ প্রচুর বই পড়েন, কেউ বা অন্য কোনও শখে খরচ করে ফেলেন মাত্রাতিরিক্ত। এমন হলে এই ধরনের খরচ কমান। বরং এক বছরে কী কী কিনবেন তার তালিকা মাস ধরে ভাগ করে নিন। লক্ষ্য রাখুন যেন কেনার মাত্রা প্রয়োজনের বাইরে না চলে যায়।

প্রচুর বাইরে খান? ‘ইটিং আউট’-এর ক্ষেত্রে কিন্তু খরচ বেড়ে যায় অনেক। তাই হিসাবহীন খরচে লাগাম টানুন। বন্ধ করুন ঘন ঘন ইটিং আউট।