সাঁথিয়ায় কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায়  শিক্ষিকাকে কুপালো বখাটে

সাঁথিয়া প্রতিনিধিঃ
পাবনার সাঁথিয়ায় কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় আফরোজা খাতুন (৩২) নামে এক শিক্ষিকাকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে এক বখাটে। সে ছেচানিয়া গ্রামের আঃ আলিমের ছেলে আতিকুল (২৯)। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার বিকেলে সাঁথিয়াÑবেড়া সড়কের ছেচানিয়া ব্রীজের উপর। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত শিক্ষিকার পক্ষ থেকে থানায় মামলা করা হয়নি।

জানা যায়, সাঁথিয়া পৌরসভাধীন দৌলতপুর গ্রামের আঃ রহমানের কন্যা এক সন্তানের জননী আফরোজা খাতুন ছেচানিয়া মেমোরিয়াল দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষকতা করেন। প্রতিদিনের ন্যায় বুধবার সে মাদরাসা ছুটি শেষে অটোভ্যান যোগে বাড়ি ফিরছিলেন। তিনি সাঁথিয়াÑবেড়া সড়কের ছেচানিয়া ব্রীজের উপর পৌছা মাত্র পূর্ব থেকে ওঁৎ পেতে থাকা বখাটে আতিকুল ভ্যানের গতিরোধ করে এলোপাথারি ভাবে শিক্ষিকাকে কুপিয়ে আহত করে। এতে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে শিক্ষিকার মাথা ও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় রক্তাক্ত জখম হয়। এসময় স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে বখাটে দৌড়ে পালিয়ে যায়। স্থানীয়ারা গুরুতর আহত অবস্থায় শিক্ষিকাকে সাঁথিয়া হাসপাতালে ভর্তি করে। অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় চিকিৎসক তাকে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করেন।
আহত শিক্ষিকার মা ফরিদা বেগম জানান, তার কন্যকে মাদ্রাসায় যাওয়া আসার পথে দীর্ঘ দিন ধরে ওই বখাটে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। বিষয়টি মাদরাসার পরিচালনা কমিটির সভাপতিকে অভিযোগ দেয়ার পরও কোন ফল হয়নি। তার অভিযোগ কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ভ্যান ঠেকিয়ে তার মেয়েকে হত্যার উদেশ্যে এ ঘটনা ঘটিয়েছে।
এ ব্যাপারে মাদরাসা কমিটির সভাপতি শাহআলম ও মাদ্রাসার সুপার আব্দুল মতিন সাংবাদিকদের জানান, ঘটনাটি খুবই ঘৃণিত তারা এর উপযুক্ত বিচার দাবি করেন । সাঁথিয়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সিদ্দিকুর রহমান জানান, আমি প্রশিক্ষনে রয়েছি। বিষয়টি কেউ জানাননি।
সাঁথিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসান ইনাম জানান, শিক্ষিকাকে কুপিয়ে আহতের ঘটনায় থানায় অভিযোগ হয়নি। অভিযোগ পেলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author