বল টেম্পারিং নিয়ে আগেও সতর্ক করা হয় স্মিথকে
ভারতের বিরুদ্ধে বিতর্কিত সিদ্ধান্তের জন্য উপমহাদেশে এতো দিন চিহ্নিত ছিলেন তিনি। সেই প্রাক্তন অস্ট্রেলিয়ান আম্পায়ার ড্যারেল হার্পার এবার স্টিভ স্মিথ-ডেভিড ওয়ার্নারদের বল টেম্পারিং নিয়ে সতর্ক বিকৃতি কাণ্ডের আবহে। অস্ট্রেলিয়ার সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানালেন দু’বছর আগেই তিনি ম্যাচ রেফারি থাকাকালীন অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া ক্রিকেটে শেফিল্ড শিল্ড-এর ম্যাচে বল বিকৃতির জন্য সতর্ক করা হয়েছিল স্মিথ-ওয়ার্নারকে।
অস্ট্রেলিয়ার সংবাদমাধ্যমকে হার্পার জানিয়েছেন, ২০১৬ সালের নভেম্বরে শেফিল্ড শিল্ডের ম্যাচে খেলতে নেমেছিল নিউ সাউথ ওয়েলস বনাম ভিক্টোরিয়া। সেই ম্যাচেই ম্যাচ রেফারি ছিলেন তিনি। প্রচারমাধ্যমের কাছে হার্পার অভিযোগ করেছেন, ‘ম্যাচের প্রথম দিন থেকেই ডেভিড ওয়ার্নার বল হাতে পেলেই তা সরাসরি উইকেটরক্ষক পিটার নেভিলকে না ছুঁড়ে মাটিতে জোরে জোরে ড্রপ করিয়ে উইকেটরক্ষকের কাছে পাঠাচ্ছিল। সব দেখার পরে দুই আম্পায়ার স্টিভ স্মিথকে অনুরোধ করেন তা বন্ধ করে পরিচ্ছন্ন ক্রিকেট খেলার জন্য। কিন্তু স্টিভ স্মিথ আম্পায়ারদের সেই আবেদনে সাড়া দেননি।’
হার্পার আরও বলেছেন, ‘বার বার আম্পায়ারদের অনুরোধের পরে স্টিভ স্মিথের প্রতিক্রিয়াও ঠিক ছিল না। বাধ্য হয়ে দ্বিতীয় দিন খেলার শুরুতে আম্পায়ারদের পাশে দাঁড়িয়ে নিউ সাউথ ওয়েলস কোচ ট্রেন্ট জনসনকে ডেকে পাঠাই। তাকে বলি, ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া চায় না দেশের অধিনায়কের নামের উপর বল বিকৃতির কালিমা লেগে যাক। তাই প্রথম দিনের মতো বল ছোড়ার পদ্ধতি যেন না নেওয়া হয়। এর পরেই ওই ভাবে বল ছোড়া বন্ধ করে দেয় নিউ সাউথ ওয়েলস।’
Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author