চাটমোহরে রসুন চাষীদের মাথায় হাত

চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি
রসুন চাষের জন্য চলনবিলাঞ্চলের মধ্যে পাবনার চাটমোহর বিখ্যাত। উপজেলার এমন কোন মাঠ নেই যেখানে রসুন চাষ হয় না। বিনাহালে রসুন আবাদে খরচ কম এবং বেশি লাভ হওয়ায় উপজেলার প্রতিটি কৃষকের কাছে রসুনের আবাদ বেশ জনপ্রিয়। এ অঞ্চলের বেশিরভাগ কৃষক পরিবারে স্বচ্ছলতা ফিরে এসেছে রসুন চাষ করে। তবে শুক্রবার চাটমোহর উপজেলার ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া কাল বৈশাখী ঝড় এবং বিশালাকৃতির শিলের আঘাতে বেশির ভাগ রসুন ফেটে নষ্ট হয়ে গেছে।

শনিবার সকালে সরেজমিনে উপজেলার, বিলচলন ছাইকোলা, নিমাইচড়া, হান্ডিয়াল, হরিপুর, মথুরাপুরসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের গ্রামগুলোতে ঘুরে দেখা গেছে নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সবাই ফেটে নষ্ট হওয়া রসুন ঘরে তুলতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। বাড়ীর গৃহবধূরা ভেজা ও ফেটে নষ্ট হওয়া রসুন রোদে শুকাতে দিচ্ছেন। ক্ষতিগ্রস্থ বেশিরভাগ কৃষকের চোখে বেয়ে গড়িয়ে পড়ছে অশ্রু। গত কয়েক বছরের তুলনায় এ বছর রসুনের আবাদ ভাল হওয়ায় কৃষকের মুখে ছিল হাসি। কিন্তু শুক্রবার দুপুরের দশ মিনিটের কাল বৈশাখী ঝড় ও ব্যাপক শিলা বৃষ্টিতে রসুনের চাষীদের মুখের হাসি ম্লান হয়ে যায়।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে চাটমোহর উপজেলায় ৬২০০ হেক্টর জমিতে রসুন চাষের লক্ষ্যমাত্রা ছিল। সেখানে লক্ষ্যামাত্রা ছাড়িয়ে ৬৭০০ হেক্টর জমিতে রসুনের আবাদ হয়। কিন্তু শুক্রবারের ঝড় ও ব্যাপক শিলা বৃষ্টিতে ৩৫০০ হেক্টর জমির রসুন ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

চাটমোহর উপজেলা কৃষি অফিসার হাসান রশীদ হোসাইনী যুগান্তরকে বলেন, আকষ্মিক ঝড় ও শিলা বৃষ্টিতে রসুনের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। আমরা ছুটির দিনেও (শনিবার) কৃষকদের পাশে দাঁড়িয়েছি। ক্ষতির ব্যাপারে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author