Main Menu

পাবনায় স্কুল ছাত্রী নিজের বিয়ে রুখে দেয়ায় সহপাঠিদের মধ্যে উল্লাস

পাবনা প্রতিনিধি ঃ পাবনার সুজানগর উপজেলার সাতবাড়ীয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী তারাবাড়ীয়ার নতুন পাড়ার রাইহিদুল মন্ডলের মেয়ে রাবেয়া আক্তার (১৩) নিজের বাল্য বিয়ে নিজেই রুখে দিয়ে এলাকায় আলোড়ন সৃষ্টি করছে। স্কুল ছাত্রীর এমন সাহসিকতার জন্য তার স্কুলের সহপাঠিদের মধ্যে আনন্দ উল্লাস বিরাজ করছে।

জানা যায়, একই গ্রামের রিকাতের ছেলে ভুটাই এর সাথে গত রোববার বিয়ের দিনক্ষন ঠিক হলে রাবেয়া বিয়েতে অসম্মতি জানায়। পরিবারের পক্ষ থেকে তাকে জোড়পূর্বক বিয়ে দেওয়ার জন্য বিয়ের সকল আয়োজন সর্ম্পূন করা হয়। সন্ধ্যা ঘনিয়ে আসলে রাবেয়া বাড়ী থেকে পালিয়ে অজানার উদ্দেশ্যে বেড় হয়ে, সুজানগর বাজারে গেলে তাকে কান্নাকাটি করতে দেখে বাজারের লোকজন তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। রাবেয়া তাদের জানায়, ‘আমার অমতে বিয়ে ঠিক করায় বাড়ী থেকে পালিয়ে এসেছি। রাবেয়ার কথা শুনে সাতবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শামসুল আলমের ছেলে এস এম সাইফুল ইসলাম বিপুল ও ইমরান হোসেন মামুন কে ঘটনাটি জানালে বিপুল ও মামুন রাতে রাবেয়া কে সুজানগর থেকে নিয়ে গিয়ে, বিয়ের অনুষ্ঠান বন্ধ করে রাবেয়া কে তার বাবা-মার কাছে দিয়ে আসে। বিপুল পরবর্তিতে রাবেয়া আক্তারের স্কুল ড্রেসসহ কাপড়-চোপড় ও আর্থিক সহযোগীতা করেন।
সাতবাড়ীয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আলাউদ্দিন জানান, রাবেয়া আক্তারের সাহসিকতা তার বাল্য বিয়ে বন্ধ করে আমার বিদ্যালয়ের অন্য শিক্ষার্থীদের সাহস বাড়িয়ে দিয়েছে। এ কারণে রাবেয়া আক্তারের লেখা-পড়ার সমস্ত দায়-দায়িত্ব বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বহন করবে।