শার্শার পল্লীতে যৌতুকের বলী হল ২ সন্তানের জননী জোহরা

ইয়ানূর রহমান : যশোরের শার্শার বাগআঁচড়ায় যৌতুকের দাবীতে নিজ স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা করেছে রিপন হোসেনএক পাষন্ড স্বামী । হতভাগ্য স্ত্রীর নাম জোহরা খাতুন(৩৪)। সে দুই সন্তানের জননী।

নিহত জোহরা বেনাপোল পোর্ট থানার বালুন্ডা গ্রামের নুর ইসলামের মেয়ে। হত্যাকারী স্বামী রিপন হোসেন শার্শার বাগআঁচড়া এলাকার সাতভাই মহল্লার মোসলেম গাজীর পুত্র । ঘটনার পর থেকে হত্যাকারী সহ তার পরিবারের সকতরে পলাতক রয়েছে

প্রতিবেশিরা জানায়, দীর্ঘ ১৭ বছর আগে শার্শার বাগআঁচড়া এলাকার মোসলেম গাজীর ছেলে রিপনের সঙ্গে বালুন্ডা গ্রামের নুর ইসলামের মেয়ে জোহরা খাতুনেরর বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে স্বামী রিপন যৌতুকের দাবিতে ব্যাপক নির্যাতন করতে থাকে। প্রায়ই রিপনের চাহিদামত যৌতুক মেটাতে হতো জোহরার বাপের বাড়ী থেকে। যৌতুক না পেলে রিপন ক্ষিপ্ত হতো এবং স্ত্রী জোহরার উপর অমানুষিক নির্যাতন করতো।

শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে প্রতিবেশীরা ঘরের আড়ার সাথে উড়না দিয়ে ঝুলানো লাশ উদ্ধার করে। নিহত জোহরার ছেলে হৃদয়(১৩) বলেছেন, কাল রাতে আব্বা আমার মাকে খুব মেরেছে।

নিহত জোহরার মা মেহেরুন জানান, আমরা আমাদের বড় মেয়ের জন্য পর্যাপ্ত পরিমানে অর্থ দেওয়ার পরও আমার মেয়ের উপর যৌতুকের জন্য ব্যাপক নির্যাতন করে। রিপন যখন আমার মেয়ের মারে তখন রক্ত রক্ত হয়ে যায়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ওরা আমার সোনাকে মেরে টাঙিয়ে রেখেছে।

নিহতের খালা বেনাপোলের বাসিন্দা শেফালি বলেন, আমার বোনজিকে মেরে টাঙিয়ে রেখেছে, জোহরার সমস্ত দেহে রক্ত জমে গেছে। এটা আমি ও আমাদের মহিলা মেম্বর সারা শরীর উল্টিয়ে পাল্টিয়ে দেখেছি তার সমস্ত শরীরে ক্ষতস্থান ও রক্ত জমে গেছে।

এ ব্যাপারে লাশের সুরতহাল কারী এস আই সাজ্জাদুর রহমান বলেন সুরতহাল রিপোর্টে নিহতের শরীরে অসংখ্যা আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্যে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

এব্যাপারে শার্শা থানায় মামলা হয়েছে। ঘটনার পর থেকেই ঘাতক রিপন তার পরিবারের সদস্যরা পলাতক রয়েছে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author