শিকল পায়ে শিশু মাদরাসা ছাত্রী উদ্ধার

গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি.
মাদরাসার পড়ায় মন বসেনা। মাঝে মাঝেই ছুটে বাড়িতে চলে আসে মেয়েটি। তাই শিক্ষকরা পায়ে শেকল পড়িয়ে মেয়েটিকে বেঁধে রাখে। এ অবস্থাতেই মেয়েটির পড়াশোনা চলছিল। খাওয়া দাওয়া ঘুমানো চলছিল এভাবেই। শনিবার সকালে মেয়েটিকে আর মাদরাসায় পাওয়া যায়নি।
শনিবার সাড়ে তিনটার দিকে যখন মেয়েটি পালিয়ে যায় প্রকৃতিতে ঘুটঘুটে অন্ধকার মারিয়ে। তখন সবাই ছিল ঘুমিয়ে। ভোরের দিকে চাঁচকৈড় বাজার এলাকায় স্থানীয়দের নজরে আসে। সেখানে তাকে আটকে রেখে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে শিকলসহ মেয়েটিকে থানায় নিয়ে আসে। মেয়েটি ভয়ে সঠিক কথা না জানানোর কারনে তার আসল ঠিকানা পেতে বিকেল হয়ে যায়। মেয়েটি ও তার মায়ের বর্ণনা অনুযায়ী পাঁচশিশা মহিলা কওমী মাদ্রসার পরিচালককে থানায় আটক করে নিয়ে আসে।
মাদ্রাসা পরিচালক জহুরুল ইসলাম জানান, মেয়েটি বার বার পালিয়ে যাওয়ায় তার মা-বাবার পরামর্শে তাকে বেঁধে রাখা হতো।
গুরুদাসপুর থানার ওসি তদন্ত তারেকুর রহমান সরকার জানান, মাদ্রাসায় মেয়েটিকে বেঁধে রাখা হতো। এঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মাদ্রাসা পরিচালককে আটক করা হয়েছে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author